নিজস্ব প্রতিবেদক, নদিয়া: সম্পত্তি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে বৃদ্ধা মাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করে দেহ ঘরের মধ্যে তালা বন্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠলো ছেলের বিরুদ্ধে। বৃদ্ধা মায়ের নাম যমুনা রায় (৭২)। বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ীর তালা বন্ধ ঘরের দরজা ভেঙে বৃদ্ধার পচা গলা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার নাকাশিপাড়া থানার খিদিরপুর গ্রামে।ঘটনায় অভিযুক্ত ছেলে কমল রায়কে আটক করেছে পুলিশ।

সূত্রের খবর, খিদিরপুর গ্রামের বাসিন্দা যমুনা রায় তার ছোট ছেলের সাথে থাকতেন। কয়েক বছর আগে ছোট ছেলে কেরলে কাজে গেলে মেজ ছেলে কমল রায়ের সাথে থাকতেন ওই বৃদ্ধা। অভিযোগ, গত কয়েক মাস যাবত একটি ঘরের দখলদারি নিয়ে বৃদ্ধার সাথে ঝামেলা চলছিল ছেলে কমল রায়ের। অভিযোগ, গত চারদিন যাবৎ ওই বৃদ্ধার কোনো খোঁজ পাচ্ছিলেন না তার প্রতিবেশী ও বড় ছেলের পরিবার। বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্ত মেজ ছেলে কমল রায়ের বাড়ীর একটি ঘর থেকে দুর্গন্ধ বের হতে দেখে এলাকাবাসীর সন্দেহ হয়। এরপরই নাকাশিপাড়া থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙে বৃদ্ধার পচা গলা দেহ উদ্ধার করে। স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, সম্পত্তির জন্যই মাকে খুন করে পরে দেহ লোপাটের উদ্দেশ্যে ঘরের মধ্যে তালা বন্ধ করে রেখেছিল ছেলে কমল রায়। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ওই বৃদ্ধাকে প্রথমে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করে গায়ে এসিড ঢেলে দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্ত ছেলে কমল রায়কে আটক করেছে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া যমুনা রায়ের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here