kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চে কথা বলতে উঠে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কংগ্রেসের প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছিলেন, আরএসএস ক্যাম্পে জঙ্গি তৈরি হয়। এই জঙ্গিরাই গুজরাট দাঙ্গার সময় ২ হাজার মানুষকে মেরে ফেলেছিল!’ এই মন্তব্যের ফলে জোর আলোড়ন উঠেছে ভারতের জাতীয় রাজনীতিতে। প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম নিয়েছেন ইমরান মানে কংগ্রেস শাসনের সময়ের কথা বলছেন তিনি। এই যুক্তি দিয়ে বিজেপি শিবির তোপ দেগেছে কংগ্রেসকেই। গেরুয়া শিবিরের মতে, ইমরান যে রাষ্ট্রসংঘে ভারতের বদনাম করতে পেরেছেন সেটার জন্য দায়ী সনিয়া গান্ধী এবং মনমোহন সিং, তাঁদের ক্ষমা চাওয়া উচিত!

গোটা বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন বিজেপি মুখপাত্র সম্বিৎ পাত্র। তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রসংঘে বক্তব্য রাখতে গিয়ে পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান যখন কংগ্রেস আমল এবং প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথা বলে ভারতকে বদনাম করছেন, তখন খুব দুঃখ পেয়েছি। আমি চাইছি সনিয়া গান্ধী, মনমোহন সিং, রাহুল গান্ধী এবং সুশীল কুমার শিন্ডে এই বিষয়ে ক্ষমা চান।’ উল্লেখ্য, মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন এই সুশীল কুমার শিন্ডে। সম্বিতের মতে, এই চারজনই ইমরান খানকে ভারতের বদনাম করতে ‘সাহায্য’ করেছেন। তাঁদের ক্ষমা চাওয়া উচিত।

তিনি আরও বলেন, সুশীল কুমার শিন্ডে যখন হিন্দুদের, আরএসএসকে এবং বিজেপির বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ তুলে বদনাম করেছেন তখন সনিয়া গান্ধী বা রাহুল গান্ধী কিংবা মনমোহন সিং কেউ বিরোধিতা করেননি। তার মানে আজ যখন সেই বক্তব্যকে হাতিয়ার করে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের বদনাম করছেন, তখন এঁরাও এর জন্য সমান দায়ী।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চে কথা বলতে উঠে নরেন্দ্র মোদীর তুলনা কার্যত হিটলারের সঙ্গে করেন ইমরান। তিনি বলেন, ‘মোদী আজীবন আরএসএসের সদস্য। এই আরএসএস হিটলার-মুসোলিনির আদর্শে তৈরি হওয়া একটি সংগঠন। আরএসএস ভারত থেকে মুসলিমদের মুছে ফেলার তত্ত্বে বিশ্বাসী। আরএসএসের প্রতিষ্ঠাতা গোলওয়ালকর ও সাভারকর সম্পর্কে গুগল করে দেখুন। এদের এই ঘৃণার নীতিই মহাত্মা গান্ধীকে হত্যা করেছিল। এমনকী কংগ্রেসের প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছিলেন, আরএসএস ক্যাম্পে জঙ্গি তৈরি হয়। এই জঙ্গিরাই গুজরাট দাঙ্গার সময় ২ হাজার মানুষকে মেরে ফেলেছিল।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here