জেলে থাকাকালীন জীবন শেষ হয়ে গিয়েছিল, জিয়া মামলায় বললেন সুরজ পাঞ্চোলী

0
1097

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বলিউডে আসার আগেই ব্ল্যাকলিস্টে নাম জড়ায় সুরজ পাঞ্চোলীর। অভিনেত্রী জিয়া খানের আত্মহত্যা মামলার নাম জড়িয়েছিল অভিনেতার। জিয়াকে আত্মহত্যার জন্য প্ররোচনা দিয়েছেন সুরজ, এমনটাই অভিযোগ করেন অভিনেত্রীর মা রাবিয়া আমিন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে কয়েকমাস জেলও খেটেচ্ছেন অভিনেতা। এই কয়েকটা মাস তাঁর জীবনে অনেক পরিবর্তন এনে দিয়েছে। সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে সুরজ জানান, ‘আর্থার রোড কারাগারে আন্ডা জেলে আমাকে রাখা হয়েছিল। ভাবতেও পারবে না সেই জায়গায় আমি শুধু একা ছিলাম। কারও সঙ্গে কথা বলতে পারবে না। এমনকি খবরের কাগজও দেওয়া হয় না। আমি একে পড়ে গিয়েছিলাম। সেই সময় শুধু একটাই কথা ভাবতাম, আমি এমন একজনকে হারিয়েছিলাম যাকে আমি সবথেকে বেশি ভালবাসতাম।’

জিয়া খানের আত্মহত্যা মামলায় অভিনেত্রীর মা সুরাজের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন, এই সমস্ত কিছুর পেছনে রয়েছেন অভিনেতা। তাঁর কারণেই জিয়া আত্মহত্যা করেছে। তিনি জিয়াকে ঠকিয়েছেন। এরপর অভিনেতার মা জিয়া খানের মা রাবিয়া আমিনের সঙ্গে দেখা করেন এবং সমস্ত কিছু মিটিয়ে নেওয়ারও কথা বলেন বলে জানা যায়। তবে অভিনেত্রীর মার অভিযোগের ভিত্তিতে একটাও কথা শোনা যায়নি সুরজের গলায়। এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি নীরব ছিলাম কারণ সেই পরিবারকে শ্রদ্ধা করি। তারা যেই পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে গেছে তা আমি ভালো করে জানি। কিন্তু সংবাদমাধ্যম সমস্ত কিছুর উর্ধ্বে চলে গেছে। তারা নিজেদের টিআরপি-র কথা ভেবেছে। যখন কোর্টে আমার মামলা চলছিল তখন সমস্ত কিছুই আমার পক্ষে গিয়েছিল। সেই সময় উপস্থিত ছিলেন অনেক সাংবাদিক। আমি তাদেরকে জিজ্ঞাসা করলাম ‘তোমরা কী এই বিষয় লিখবে?’ তারা আমায় স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, এর মধ্যে কোনও গল্প নেই এবং তারা তা করতে অস্বীকার করে।’

উল্লেখ্য, ‘হিরো’ ছবি দিয়ে বলিউডে ডেবিউ করেন সুরজ পাঞ্চোলী। বিপরীতে দেখা গিয়েছিল আথিয়া শেট্টিকে। সলমান খানের হাত ধরেই বলিউডে পাস রাখেন সুরজ এবং আথিয়া। ২০১৫ সালে মুক্তি পায় ‘হিরো’। এরপর সুরাজকে দেখা যাবে ‘টাইম টু ডান্স’ ছবিতে। বিপরীতে রয়েছেন ক্যাটরিনার বোন ইজাবেল কাইফ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here