kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া ও দুর্গাপুর: আদালতের নির্দেশিকা থাকায় জেলায় ঢুকতে পারছেন না বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ। সেই কারণে জেলায় নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারছেন না তিনি। এদিকে তৃণমূল ও সিপিআইএম সেই অনুপস্থিতির সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রচার কাজ সেরে ফেলেছে বেশ অনেকটাই। স্বামীর অনুপস্থিতিতে বড়জোড়ায় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করেন সৌমিত্রর স্ত্রী সুজাতা মণ্ডল খাঁ। অন্যদিকে খণ্ডঘোষ বিধায়সভায় নিজেই প্রচার চালান সৌমিত্র খাঁ৷ এদিন খণ্ডঘোষে সৌমিত্র খাঁ-এর বিরুদ্ধে অনুমতি না নিয়ে প্রচার চালানোর অভিযোগ তোলা হয় তৃণমূলের তরফে৷ সৌমিত্রবাবু জানান, পুলিশের কাছে অনুমতি চাওয়া হলেও অনুমতি দেয়নি প্রশাসন, তাবলে প্রচার বন্ধ রাখা যাবে না৷

এদিন বিষ্ণুপুর কেন্দ্রের অন্তর্গত পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ বিধানসভা এলাকায় প্রচার চালাতে গেলে পুলিশ তাঁকে বাধা দেয় বলে অভিযোগ সৌমিত্রর৷ তবে কোনওক্রমে প্রচার শেষ করতে সক্ষম হন তিনি৷ দুর্গাপুর গেস্ট হাউসে বসে সৌমিত্র খাঁ জানান,  প্রচারে তাঁর আইনগত বাধার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশি বাধা ও তাঁর প্রচার কার্য ব্যাহত করা হয়েছে৷অন্যদিকে বাঁকুড়ায় তাঁর হয়ে প্রচার সারলেন তাঁর স্ত্রী সুজাতা খাঁ৷ এদিন সুজাতা দেবীর পাশাপাশি তাঁর বাড়ির অন্যান্য সদস্যরাও সৌমিত্রর হয়ে প্রচার সারেন৷ বড়জোড়ার ব্যাঙ্ক মোড় থেকে স্থানীয় বিজেপি কর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে রোড শো করে প্রচার সারতে দেখা গেলো বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সৌমিত্র খানের স্ত্রী সুজাতা খাঁকে। মানুষের কাছে স্বামীর জন্য ভোটও চাইলেন সুজাতা। বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বর্ধমানের খণ্ডঘোষ বিধানসভা প্রচার চালানোর সময় বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী বলেন, বাঁকুড়ায় তিনি প্রচার করতে না পারলেও তাঁর স্ত্রী ও পরিবারের মানুষ প্রচার করবে এবং বিষ্ণুপুরে লোকসভা আসনে বিপুল ব্যবধানে জয়ী হবেন বলেও দাবি করেন তিনি।

 

প্রসঙ্গত, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি যোগদানের পরই চাকরী দেওয়ার নাম করে আর্থিক প্রতারণা সহ অস্ত্র আইনেও তাঁর বিরূদ্ধে মামলা রুজু হয়েছে। সেই মামলাতেই আদালতের নির্দেশে সৌমিত্রবাবুর বাঁকুড়া জেলায় ঢোকার ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এমনকি মামলার তদন্তকারী আধিকারিকগনও সৌমিত্রবাবুকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দুর্গাপুর থানাকে বেছে নিয়েছেন। দুবার দুর্গাপুর থানায় তাঁকে জেরা করেন বাঁকুড়া পুলিশের আধিকারিকগন। তাঁর আপাতত ঠিকানা দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার অতিথি নিবাস। সেখান থেকে ফোন মারফৎ বাঁকুড়া জেলা নেতৃত্বের সাথে যোগাযোগ রেখেছেন, বিষ্ণুপুরের বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বারংবার ফোনে কথা বলছেন। বিষ্ণুপুর থেকে দলীয় কর্মীরাও আসছেন সৌমিত্রবাবুর সাথে দেখা করতে। দুর্গাপুরে বসেই প্রচারের ব্যাপারে দলীয় কর্মীদের নির্দেশ দিচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here