Parul

মহানগর ডেস্ক: বিরোধী দলের নেতার সঙ্গে দিলীপ ঘোষ, সৌমিত্র খাঁ তাঁর ডিপিতে প্রকাশ করেছেন এরকমই এক ছবি, যা ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলেছে রাজনৈতিক মহলে। নিজের হোয়াটসঅ্যাপের ডিপি হিসেবে কুণাল ঘোষ ও দিলীপের একটি ছবি পোস্ট করেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। এরকম ডিপি দেওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করায় সৌমিত্র বলেন, যে নম্বরে এই কাণ্ড ঘটানো হয়েছে তা নাকি ওনার অফিসিয়াল নম্বর নয়। তাঁকে বদনাম করার জন্যেই এহেন কাজ করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। এই ডিপি কখন, কে, কিভাবে দিল কিছুই জানেন না সৌমিত্র।

ads

বেশ কিছুদিন আগে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন কুণাল ঘোষ এবং দিলীপ ঘোষ। সেখানে দুই নেতাকে বেশ কথা বলতে দেখা যায়। পরবর্তীতে সোশ্যাল মিডিয়াতে সেই বিয়েবাড়ির ছবিগুলি ভাইরাল হয়। 

    ডিপি বদলের এই খবরটি প্রকাশিত হতেই ডিপি বদল করা হয় সেই নম্বরের। পরে সৌমিত্র খাঁ দাবি করেন, তিনি এই ছবি বদল করেননি, এটি তাঁর অফিসিয়াল নম্বর নয়। তাঁর ২ টি অফিসিয়াল নম্বর। তাঁকে জানানো হয় বদল করা ডিপির নম্বরে ফোন করলে ট্রু-কলার , আ্যপটির মাধ্যমে দেখা যায় তা সৌমিত্র খাঁ এর‌ই নম্বর। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। 

     এই ঘটনার আগে ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে যুব মোর্চার সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ করার কথা বলেছিলেন সৌমিত্র খাঁ। তাঁর এরকম সিদ্ধান্তের কারণ জিজ্ঞাসা করায় উত্তরে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে তীর ছুঁড়েছেন সৌমিত্র খাঁ। তাঁর মত এক কেন্দ্রীক ভাবে চলছে পার্টি। এই মন্তব্যের প্রত্যুত্তরে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘পাগলামির একটা সীমা থাকে। রাজনীতিতে অনেক জোকার ই থাকে কিন্তু বয়সের সঙ্গে যদি অভিজ্ঞ না হতে পারে কেউ তাহলে পার্টি সেক্ষেত্রে কি করবে।’ যদিও পরে নিজের ইস্তফার সিদ্ধান্ত থেকে বিরত হন খাঁ। 

 

      এদিকে রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সৌমিত্র খাঁয়ের। তাঁর মতে, সৌমিত্র খাঁ আবেগতাড়িত হয়ে এই কাজ করেছেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here