ডেস্ক: রীতিমতো আঁটঘাঁট বেঁধে দীর্ঘদিন ধরেই রমরমিয়ে চলছিল ব্যবসা। কেউ কোনও টেরও পায়নি। অবশেষে বামাল সমেত পাকড়াও হল বাড়ির মালিক। তার চেয়েও আশ্চর্যের যার বাড়িতে চলছিল এই দেহ সে আবার দার্জিলিং জেলা পুলিশের প্রাক্তন গাড়ি চালক। ভাড়া বাড়িতে কি ঘটনা ঘটে চলেছে তার বিন্দুবিসর্গও জানতেন না বলে দাবি করেছেন ওই বাড়ির মালিক। ঘটনাটি ঘটেছে দার্জিলিং জেলার শিলিগুড়িতে। অভিযুক্ত ওই বাড়ি মালিকের নাম চৈতন্য দাস। তিন মহিলা সহ অভিযুক্ত ওই বাড়ি মালিককে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, শিলিগুড়িতে ওই এলাকায় চৈতন্য দাসের দুটি বাড়ি রয়েছে। যেখানে একটি বাড়ি সে ভাড়া দিয়েছিল। ৫ টি পরিবার সেই বাড়িতে থাকত। সম্প্রতি, বাড়ির তৃতীয় তলায় নতুন এক ভাড়াটিয়া আসে। আর তারপর থেকেই ওই বাড়িতে বাড়তে থাকে অপরিচিত মহিলাদের আনাগোনা। এর জেরে সন্দেহ হয় নিচের তলার বাসিন্দাদের। তাঁরা সিসিটিভি বসানোর উদ্যোগ নেয় কিন্তু তা বসাতে বাধা দেয় চৈতন্যবাবু। এরপর গোপন সুত্রে খবর পেয়ে গতকাল রাতে ওই বাড়িতে অভিযান চালায় শিলিগুড়ি থানার পুলিশ। সেখানে ওই তিন মহিলাকে আটক করার পাশাপাশি চৈতন্য দাসকেও পাকড়াও করে পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে ওই বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করা হয় প্রচুর কন্ডোম ও একটি অ্যালবাম। যেখানে বিভিন্ন বয়সী মহিলাদের ছবি ছিল। মনে করা হচ্ছে এই ছবি দেখিয়েই কাস্টমারদের সঙ্গে ডিল করত অভিযুক্তরা। ঘটনায় ওই তিন মহিলা ও বাড়ির মালিককে আটক করা হলেও জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেওয়া হয় বাড়ির মালিককে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here