kolkata bengali news
Parul

মহানগর ডেস্ক:  আগামী বছর পঞ্জাবে বিধানসভা নির্বাচন। নির্বাচনের আগেই সিধু ও অমরিন্দর সিংয়ের দ্বৈরথ বন্ধ হয়ে যাবে বলেই মনে করা হয়েছিল। কিন্তু উল্টো হল। সিধুকে পঞ্জাব কংগ্রেসের প্রধান হিসেবে ঘোষণা করতে পঞ্জাবে কংগ্রেসের কোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে। অমরিন্দর সিং দলের সিদ্ধান্তে আদৌ খুশি নয় বলেই জানা গিয়েছে।

ads

আনুষ্ঠানিকভাবে সিধুর নাম ঘোষণার আগেই কংগ্রেস দ্বিধাভক্ত হয়ে গেছে। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে তিন মন্ত্রী ও ছয় বিধায়ক গোপন বৈঠক করেন। তিন মন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচক হিসেবেই পরিচিত। অন্য দিকে, পঞ্জাব মুখ্যমন্ত্রীর ঘনিষ্ট মন্ত্রী বিধায়করা বৈঠক করেন। সেখানে সিধুর বিরোধিতা করা হবে বলেই জানা গিয়েছে। শুধু তাই নয়, যারা সিধুকে সমর্থন করবেন, তাঁদের বহিষ্কার করা হবে বলে ওই বৈঠক থেকে জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে পঞ্জাবে বিধানসভা নির্বাচনের আগেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদেন নভ্যোজৎ সিং সিধু। নির্বাচনের জয়ের পর তাঁর উপমুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং বাধা দেন। এরপর থেকেই দুই কংগ্রেস নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়। একাধিকবার সেই দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে। সেই দ্বন্দ্ব এখনও মেটেনি।

দ্বন্দ্ব মেটাতে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব সচেষ্ট হয়েছেন। দুই নেতৃত্বই দিল্লিতে গিয়েছিলেন। সোনিয়া গান্ধির সঙ্গে দেখা করেছিলেন। দুই নেতার মনোমালিন্য দূর করতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, রাজ্যে কংগ্রেসের সভাপতি হবেন সিধু, আর মুখ্যমন্ত্রী হবেন অমরিন্দর সিং। কিন্তু এতে দ্বন্দ্ব কমল না, বরং দ্বন্দ্ব আরও প্রকাশ্যে এল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here