kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথির অধিকারী পরিবারের হাইপ্রোফাইল নেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর পরিবারে বাবা ছাড়া আরও দুই ভাই রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। মোটকথা গোটা পরিবারটি রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে আছে। সেই পরিবারের বড় ছেলে শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখানোর পর একাধিকবার দাবি করেছেন, তৃণমূলকে হারাতে এবার গোটা রাজ্যে পদ্ম ফোটাবেন তিনি। তাঁর এই কথার পর তৃণমূল যুব সভাপতি তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ‘আগে নিজের বাড়িতে পদ্ম ফোটান। তারপর বাংলায় পদ্ম ফোটানোর কথা বলবেন।‘

কাঁথি পুরসভার পুরপ্রশাসক তথা শুভেন্দু অধিকারীর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীকে তাঁর পদ থেকে অপসারণ করেছে প্রশাসন। তারপর সৌমেন্দু যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। এখনও তাঁর বাবা শিশির অধিকারী ও এক ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী খাতায় কলমে তৃণমূলে আছেন। এক ভাইকে বিজেপিতে যোগদান করিয়ে কাঁথির শান্তিকুঞ্জে পদ্ম ফুটিয়েছেন শুভেন্দু। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেই চ্যালেঞ্জ প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, এখন সবে তো শুরু। রামনবমী আসুক। আমার পরিবারে পদ্ম ফুটবে। একইসঙ্গে পাল্টা চ্যালেঞ্জ হিসেবে তিনি বলেছিলেন, এবার কালীঘাটে পদ্ম ফোটাবেন তিনি। এবার কালীঘাটে সেই পদ্ম ফোটানোর দিনক্ষণ ঘোষণা করে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

সোমবার তমলুকের জনসভা থেকে তিনি ঘোষণা করেন, আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি আমি আপনার বাড়িতে পদ্ম ফোটাব। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘আমার বাড়িতে পদ্ম ফুটতে শুরু করেছে। রামনবমীর আগে বাকি সব পদ্ম ফুটে যাবে। আর ১৬ ফেব্রুয়ারির পরে আমি আপনার বাড়িতে পদ্ম ফোটাব। শুভেন্দুর এই মন্তব্যের পর এবার জোরকদমে জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে কি মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের কেউ বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? সোমবার সারাদিন এই প্রশ্ন ঘুরতে থাকে রাজনৈতিক মহলে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে মুখ্যমন্ত্রীর এক ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ‘মুখে দেশের ও দশের কথা বলব। আর সুযোগ-সুবিধা দেব নিজের পরিবারকে। এটাই এখন ভারতীয় রাজনীতি।‘ এই কথা বলার পর তাঁর কাছে জানতে চাওয়া হয়, তিনি কি তা হলে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন? তার জবাবে ইঙ্গিতপূর্ণ ভাবে তিনি বলেছিলেন, ‘আগামী দিনে কী হবে সেটা কেউ বলতে পারে না। কালকে আমি নিজে কি করব, তা আমি নিজেও জানি না।‘ কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য এবং শুভেন্দু অধিকারীর কালীঘাটে পদ্ম ফোটানোর দিনক্ষণ বেঁধে দেওয়া নিয়ে এবার জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here