ডেস্ক: মৃত্যুর পর কেটে গিয়েছে ৪৮ ঘণ্টারও বেশি সময়। কিন্তু এখনও দেশের মাটি ছুঁতে পারে শ্রীদেবীর নশ্বর দেহ। সময় যত গড়াচ্ছে ততই বেড়ে চলেছে জল্পনা। একই সঙ্গে উঠে আসছে একের পর এক নতুন তথ্য। কখনও জানা যাচ্ছে জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়েছেন বনি কাপুর। কখনও আবার শোনা যাচ্ছে ফের অটোপ্সি করা হতে পারে তার দেহ। সব মিলিয়ে বিদেশের আইনি জটিলতা এবং আরও নানা ফাঁদে পড়ে সোমবার সারাদিন কেটে গেলেও ফেরানো সম্ভব হয়নি শ্রীদেবীর মরদেহকে। মঙ্গলবারও আদেও ফিরে আসা যাবে কিনা সেই নিয়েও তৈরি হয়েছে জল্পনা।

সোমবার ময়নাতদন্তের রিপোর্টেই পরিস্কার হয়ে গিয়েছিল হার্ট অ্যাটাক নয়, মত্ত অবস্থায় জলে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। মনে করা হচ্ছে, মঙ্গলবার সকাল দশটার পর শ্রীদেবীর নিথর দেহ মর্গ থেকে ছাড়ার একটা ক্ষীণ সম্ভাবনা রয়েছে। তারপর দেহ সংরক্ষণ প্রক্রিয়া সহ আরও কিছু কাজকর্মের পর দেহ আনা সম্ভব মুম্বইয়ে। শ্রীদেবীর দেহ মুম্বইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার আগে তাতে রাসায়নিক প্রলেপ দিয়ে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। সবকিছু ঠিকঠাক চললেও তা মিটতে কমপক্ষে ঘণ্টা চারেক লাগবে।

অন্যদিকে, শ্রীদেবীর স্বামী বনি কাপুরের বয়ান ইতিমধ্যেই রেকর্ড করেছে দুবাই পুলিশ। খতিয়ে দেখা হচ্ছে শ্রীদেবীর ফোনের কললিস্টও। শুধু বনি নন, দুবাই পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করেছে অভিনেত্রীর পরিবারের অন্য সদস্য এবং যে হোটেলে শ্রী-র দেহ মিলেছে, সেখানকার কর্মীদেরও। মনে করা হচ্ছে ভবিষ্যতেও তদন্তের স্বার্থে বনিকে তলব করতে পারে দুবাই পুলিশ।

এদিকে দুবাইয়ে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত নবদীপ সিং সুরি মারাত্মক অসন্তুষ্ট ভারতীয় মিডিয়ার ভুমিকায়। তাঁর মতে, শ্রীদেবীর আকস্মিক মৃত্যু ঘিরে মাত্রাতিরিক্ত জল্পনা ছড়ান হচ্ছে যা ঠিক নয়। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী প্রশাসন ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করছে এবং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্রশাসনিক কাজ মিটিয়ে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে শ্রীদেবীর দেহ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here