Home Featured সেপ্টেম্বর থেকেই ভারতের মাটিতে উৎপাদন হবে স্পুটনিক’ ভি, চুক্তিবদ্ধ দুই সংস্থা

সেপ্টেম্বর থেকেই ভারতের মাটিতে উৎপাদন হবে স্পুটনিক’ ভি, চুক্তিবদ্ধ দুই সংস্থা

0
সেপ্টেম্বর থেকেই ভারতের মাটিতে উৎপাদন হবে স্পুটনিক’ ভি, চুক্তিবদ্ধ দুই সংস্থা
Parul

মহানগর ডেস্ক: বেশ কিছুদিন আগে শোনা গিয়েছিল যে সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি হবে রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি। অবশেষে মঙ্গলবার ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট এবং রাশিয়ান ডাইরেক্ট ইনভেসমেন্ট ফান্ড ঘোষণা করল যে, সেপ্টেম্বর থেকে ভারতে তৈরি হবে করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন স্পুটনিক’ ভি। রাশিয়ার সার্বভৌম সম্পদ তহবিল সারাবিশ্বব্যাপী এই ভ্যাকসিনকে প্রচার করেছে। সেখান থেকে জানানো হয়েছে, ভারতে প্রতিবছর এই ভ্যাকসিনের ৩০০ মিলিয়ন ডোজ উৎপাদন করা হবে।

আরডিআইএফ এর একটি বিবৃতি অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, প্রযুক্তিগত স্থানান্তর প্রক্রিয়ায় এসআইআই ইতিমধ্যেই গামালিয়া কেন্দ্র থেকে সেল এবং ভেক্টর নমুনা পেয়েছে। তাদের ড্রাগ ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলার দ্বারা অনুমোদিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই, উৎপাদন প্রক্রিয়া শুরু করে দেওয়া হবে। এসআইআই সিইও আদার পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, সারাবিশ্বে স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিন এর গ্রহণযোগ্যতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমরা আশা করি আগামী সেপ্টেম্বর মাসে ব্যাচ দিয়ে কয়েক মিলিয়ন ডোজ তৈরি করে ফেলতে পারবো। যার কার্যকারিতা উচ্চ মানের হবে এবং ভালো সুরক্ষা সহ ভ্যাকসিনটি সারা ভারত এবং বিশ্বজুড়ে মানুষের কাছে অ্যাক্সেসযোগ্য করে তোলা হবে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, বর্তমানে সারাবিশ্বে এই ভাইরাস এর জীবতকাল অনিশ্চয়তা রয়েছে। যার প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক সংস্থা গুলি এবং সরকারের পক্ষ থেকে এই মহামারীর বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই সহযোগিতা আরো জোরদার হবে। আরডিআইএফ এর সিইও কিরিল দিমিত্রিভ জানিয়েছেন, অংশীদারিত্ব উৎপাদন সক্ষমতা যথেষ্ট পরিমাণে বাড়ানোর জন্য এই বড় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানিয়েছেন, এই কৌশলগত অংশীদারিত্ব ভারত ও বিশ্বজুড়ে উভয় জীবন বাঁচবে। আমাদের উৎপাদন ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলার জন্য এটি একটি বড় পদক্ষেপ। প্রযুক্তি হস্তান্তর এর সঙ্গে সঙ্গে আমরা আশা করছি আসন্ন মাসগুলোতে ভ্যাকসিন এর প্রথম ব্যাচ এর সঙ্গে যৌথভাবে ভ্যাকসিন উৎপাদন করবে। মস্কোর গামালিয়া ন্যাশনাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিওলজি এন্ড মাইক্রোবায়োলজি দ্বারা নির্মিত চলতি ভ্যাকসিন চলতি বছর মে মাসে ভারতে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছিল।

বর্তমানে এই ভ্যাকসিন হায়দ্রাবাদের ডক্টর রেড্ডির ল্যাবরেটরীতে উৎপাদিত হচ্ছে। সম্প্রতি ডক্টর রেড্ডি আর ডি আই এফ এর থেকে স্পুটনিক’ ভি এর প্রায় ৩ মিলিয়ন ডোজ পেয়েছেন। যার সঙ্গে ভারতে ১২৫ মিলিয়ন লোককে এই ডোজ বিক্রি করার চুক্তি হয়েছে।

সোমবার হায়দ্রাবাদে ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা জানিয়েছে, পাইলট প্রকল্পটি দেশের অন্যান্য শহরে প্রসারিত করেছে। আগামী সপ্তাহ গুলিতে স্পুটনিক’ ভি এর বাণিজ্যিক roll-out আরো শক্তিশালী করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here