kolkata bengali news

ডেস্ক: টানা ২৮ দিন চাকরির দাবিতে অনশন করার পর, বুধবার প্রেস ক্লাবের সামনে অনশনরত চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার আস্বাসের পর অবশেষে ২৯ দিনের মাথায় অনশন প্রত্যাহার করলেন চকরি প্রার্থীরা। স্বাভাবিক ভাবে এই চাকরিপ্রার্থীদের অনশন প্রত্যাহারের জেরে স্বস্তি পেল শাসক শিবির থেকে শুরু করে গোটা রাজ্য। তবে অনশন প্রত্যাহার করা হলেও, চাকরিপ্রার্থীরা রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে জানান, মুখ্যমন্ত্রীর উপর ভরসা রয়েছে। তবে রাজ্য সরকার যদি তাঁদের দাবি না মানে সেক্ষেত্রে ফের অনশনে বসবেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, বুধবার কালীঘাটে লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষ্যে তৃণমূলের ইস্তেহার প্রকাশের পর হঠাৎ এসএসসির অনশন মঞ্চে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে দেখা করে তিনি বলেন, ‘এখন নির্বাচনের আদর্শ আচরণবিধি জারি হয়ে গিয়েছে, ফলে আমাদের কিছু করার নেই। যদি আপনারা বিশ্বাস করেন, আমি অনুরোধ করব একটু অপেক্ষা করতে। পার্থদা কমিটি গঠন করেছে, তারা জুনের মধ্যেই পদক্ষেপ করবে। দরকারে আইন পরিবর্তন করার কথা ভাবব। আমার দিক থেকে আপত্তি নেই। যতটা পারব সহানুভূতিশীল থাকব।’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফে অনশন তুলে নেওয়ার আবেদন করার পর অনশনরত চাকরিপ্রার্থীদের তরফে জানা যায় তাঁরা অনশন প্রত্যাহারের বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা করবে। এরপর বৃহস্পতিবার বিকাশ ভবনে গিয়ে সরকার গঠিত কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন হবু শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দল। সেখান থেকে ফিরে এসে নিজেদের মধ্যে আলোচনার পরেই অনশন প্রত্যাহারের কথা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেন তাঁরা।

উল্লেখ্য, এসএসসি পাশ অথচ চাকরি মিলছে না, চাকরির জন্য একটার পর একটা প্রক্রিয়া শেষ হতে সময় লেগে যাচ্ছে অনেকদিন। অথচ শূন্যপদ ফাঁকা। সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে চাকরির দাবিতে মেয়োরোডে প্রেসক্লাবের সামনে অনশনে বসেন প্রায় ৪০০ চাকরিপ্রার্থী। দীর্ঘ দিন অনশনের জেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন তাঁদের মধ্যে প্রায় ২৫০ জন। দীর্ঘ দিন অনশনের পর একে একে অনশনরত চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে দেখা করেন রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে সমাজ কর্মীরা। শঙ্খ ঘোষ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিরা দেখা করেন তাঁদের সঙ্গে। এরপর অনশনের ২৮ দিনের মাথায় সেখানে আসেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর আস্বাসের পর বৃহস্পতিবার অনশন তুলে নিল এসএসসি পরিক্ষার্থীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here