ডেস্ক: ইচ্ছা থাকলেও পঞ্চায়েতে সমস্ত জায়গায় প্রার্থী দিতে পারেনি বিজেপি। যদিও সেখানে তৃণমূল সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিল তারা। কিন্তু লোকসভায় নির্বাচনে ৪২ টি আসনে প্রার্থী দিতে বদ্ধপরিকর বিজেপি নেতৃত্ব। কে, কোথায় নির্বাচনে দাঁড়াবেন তার পুরো দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে রাজ্য বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের কাঁধে। নির্বাচন পূর্বে তিনিই এখন রাজ্য বিজেপির হত্তা-কত্তা-বিধাতা। নির্বাচন কমিটির আহ্বায়ক পদে বসানো হয়েছে তাঁকে। এদিকে রবিবারই ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে নির্বাচনী নির্ঘণ্ট। কিন্তু তৃণমূলকে টেক্কা দিতে বিজেপির তরফে কে হবেন প্রার্থী? যোগ্য লোক খুঁজতে ঘাম ছুটছে রাজ্য বিজেপি নেতাদের।

যদিও ইতিমধ্যেই তৃণমূলের ঘর ভেঙে বেশ কয়েকজনকে ঢোকানো হয়েছে বিজেপিতে যার মধ্যে রয়েছেন, বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। পাশাপাশি, সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ, রয়েছেন তৃণমূল ছেড়ে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শঙ্কুদেব পন্ডা। তবে প্রার্থী তালিকায় যে সমস্ত নাম রয়েছে তা নিয়ে অন্তর্দ্বন্দ্বও কম নেই বিজেপির অন্দরে। এহেন পরিস্থিতিতেই রাজ্য থেকে বিজেপির প্রার্থী কে হবেন সেই তালিকা হাতে নিয়ে সোমবার দিল্লি ছুটলেন দিলীপ মুকুলরা। বিজেপি সূত্রে জানা যাচ্ছে, ইতিমধ্যে যে তালিকা তৈরি করা হয়েছে তাতে মনোমতো প্রার্থী সেভাবে মেলেনি বিজেপির। উপযুক্ত প্রার্থী না মেলায় বেশ উদ্বিগ্ন বিজেপি শিবির। তালিকায় অবশ্য রাজনৈতিক ব্যক্তি ছাড়া প্রথম পছন্দের তালিকায় রাখা হয়েছে ডাক্তার, আইনজীবী, সমাজসেবীদের।

 

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, কোথায় কোথায় কাকে প্রার্থী করা হবে এই বিষয়ে তৃণমূলের উপরই নির্ভরশীল বিজেপি। তৃণমূলের প্রার্থীর ওজন বুঝে সেখানে লড়াইতে পাঠানো হবে বিজেপির প্রার্থীদের। সেখানে কোথাও হতে পারে টক্কর তো কোথাও নিতান্ত দিতে হয় তাই প্রার্থী দেবে বিজেপি। যদিও সে বিষয়ে চূড়ান্ত আলোচনা করতে সোমবার বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে আজই বৈঠক করবেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৈঠকে থাকবেন রাজ্য বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। পাশাপাশি, তৃণমূল ভাঙিয়ে তালিকায় নতুন প্রার্থী ঢোকানোর বিষয়টিও মাথায় রয়েছে বিজেপির। মুকুলের সৌজন্যে লোকসভার আগে বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট তৃণমূলে আসতে পারেন বলে দাবি গেরুয়া শিবিরের।

এদিকে, এই ভাঙনের রাজনীতি প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি তৃণমূল। সম্প্রতি সব্যসাচী দত্তের বাড়িতে মুকুলের আগমন প্রেক্ষিতে তৃণমূলে নেতা ফিরহাদ হাকিমের দাবি, ‘বিজেপি প্রার্থী না পেয়ে ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে বাড়িতে বাড়িতে। নেতারা বলছেন আমাদের প্রার্থী হবে গো। অন্যান্য দলগুলির হেঁসেলে উঁকি মারছে ওরা। কিন্তু দুঃখের বিষয় সাড়া মিলছে না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here