মেদিনীপুর সফরে যাবেন মমতা, জেলা আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে অতিরিক্ত মুখ্যসচিব

0
177
kolkata bengali news, district news

নিজস্ব প্রতিবেদক, মেদিনীপুর: জেলা সফরে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাই মেদিনীপুর জেলা প্রশাসনিক কর্তাদের ব্যস্ততা তুঙ্গে৷ পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিতে উদ্বিগ্ন রাজ্য অধিকর্তারাও৷ তাই মুখ্যমন্ত্রীর জেলা সফরের প্রাক্কালে বৃহস্পতিবার সরেজমিনে মেদিনীপুরে গিয়ে সেখানকার স্বাস্থ্য পরিষেবার হালহকিকত খতিয়ে দেখেন রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা৷ জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে একপ্রস্থ বৈঠকও করেন তিনি৷ কোন হাসপাতালে কত ডাক্তারের ঘাটতি রয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা স্বাস্থ্য দফতরের কাজগুলি কেন হচ্ছে না, সে বিষয়ে খোঁজখবর নেন তিনি৷

জানা গিয়েছে, চলতি মাসের ২৬ তারিখ মেদিনীপুর জেলা সফরে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বীরসিংহ গ্রামে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দুইশত জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন তিনি। তারপর জেলা প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন৷ ওই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর সমস্ত প্রশ্নের যথাযথ জবাব দেওয়ার জন্যই নিজেদের একপ্রস্থ ঝালিয়ে নিতে উদ্যোগী রাজ্যের প্রশাসনিক অধিকর্তারা৷ সেজন্যই জেলার স্বাস্থ্য পরিষেবার সার্বিক চিত্র নিতে এদিন মেদিনীপুরে গিয়ে জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব৷

সূত্রের খবর, স্বাস্থ্য দফতরের কিছু কাজ দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে রয়েছে৷ সেগুলি কেন সম্পূর্ণ হচ্ছে না, সে ব্যাপারে এদিন জেলা অধিকর্তাদের থেকে খোঁজখবর নেন রাজীব সিনহা৷ পাশাপাশি জেলার স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতি না হওয়ার পিছনে যে পরিকাঠামোগত কিছু ঘাটতি রয়েছে, তা কার্যত মেনে নেন তিনি৷ তবে এবার সেই সমস্ত ঘাটতি পূরণ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন রাজীব সিনহা৷ তিনি জানিয়েছেন, বিভিন্ন স্বাস্থ্য দফতরের কাজগুলির উপর যেমন নজর দেওয়া হবে, তেমনই প্রাইমারি হেলথ সেন্টার থেকে জেলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিকাঠামোগত উন্নয়নের উপরেও বিশেষ নজর দেওয়া হবে৷ জেলা স্বাস্থ্য পরিষেবার সমস্যাগুলি জানার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকের আগে জরুরীভিত্তিতে কোন কোন কাজগুলি করতে হবে, এদিন তারও নির্দেশিকা দেন স্বাস্থ্য দফতরে অতিরিক্ত মুখ্য সচিব৷

উল্লেখ্য, বিধানসভা ভোটকে পাখির চোখ করে রাজ্যজুড়ে জনসংযোগ কর্মসূচি শুরু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মন্ত্রী, বিধায়কদের তাঁদের এলাকায় পাঠানোর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী নিজেও প্রতিটি জেলায় যাচ্ছেন৷ তিনি একদিকে যেমন প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে জেলার সার্বিক পরিস্থিতির খোঁজখবর নিচ্ছেন, অপরদিকে গ্রামে গিয়ে সেখানকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে তাদের সুবিধা-অসুবিধা, সমস্যার ব্যাপারে খোঁজখবর নিচ্ছেন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here