Home Featured সরকারী কর্মীদের ডিএ দেওয়ার সামর্থ্য নেই, স্যাটে জানাল রাজ্য সরকার

সরকারী কর্মীদের ডিএ দেওয়ার সামর্থ্য নেই, স্যাটে জানাল রাজ্য সরকার

0
সরকারী কর্মীদের ডিএ দেওয়ার সামর্থ্য নেই, স্যাটে জানাল রাজ্য সরকার
Parul

Highlights

  • রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ
  • এই পরিস্থিতিতে কর্মচারীদের ডিএ দেওয়ার মতো সামর্থ্য নেই সরকারের
  • শুনানিতে জানালেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনেরাল কিশোর দত্ত

মহানগর ওয়েবডেস্কঃ ২০১৯ সালে বীরভূমের ইলামবাজার সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন মিটিয়ে দেওয়া হবে সরকারী কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ। তবে তা হয়নি। সেক্ষেত্রে স্যাটের নিয়মও মানেনি তারা যার ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই আদালতের দ্বারস্থ হয় সরকারী কর্মচারীদের সংগঠন। কিন্তু ৯ জানুয়ারি অর্থাত্ বৃহস্পতিবার শুনানি চলাকালীন ফের একবার সরকারী কর্মচারীদের আশাহত হতে হল। রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ । এই পরিস্থিতিতে কর্মচারীদের ডিএ দেওয়ার মতো সামর্থ্য নেই সরকারের। শুনানিতে জানালেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনেরাল কিশোর দত্ত।

কিশোর দত্ত বলেন, ‘রাজ্য কীভাবে ডিএ দেবে তা ঠিক করার এক্তিয়ার কি আদৌ স্যাটের আছে ?’ অন্যদিকে, রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের তরফে আইনজীবী সরদার আমজ়াদ আলি বলেন, ‘বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য স্যাটে ফেরত পাঠিয়েছে হাইকোর্ট । ফলে এক্তিয়ার নিয়ে প্রশ্ন নেই । আসলে রাজ্য এসব করে দেরি করতে চাইছে ।’ এই প্রেক্ষিতে কিশোর দত্ত পালটা বলেন, ‘তামিলনাডু সরকারসহ আরও বেশ কয়েকটি মামলায় ডিএ সরকারি কর্মচারীদের আইনসঙ্গত অধিকার নয় বলে রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট ‘।

আইনজীবী আমজ়াদ আলি বলেন, ‘এই মামলা যখন বিচারাধীন ছিল তখন রাজ্যের তরফে এজি এই সমস্ত রায়ের উল্লেখ করেছেন । সেই সমস্ত রায় খতিয়ে দেখেই, ডিএ সরকারি কর্মচারীদের আইনসঙ্গত অধিকার বলে রায় দিয়েছিল হাইকোর্ট । তাই রাজ্য এখন ডিএ প্রদানের বিষয়টিকে শুধু শুধু বিলম্বিত করতে চাইছে রাজ্য সরকার।’

প্রসঙ্গত, গতবছর জুলাইয়ে বিচারক রঞ্জিত কুমার বাগ ও সুবেশ কুমার দাসের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দেয়, সরকারি কর্মচারীদের ষষ্ঠ পে কমিশন অনুযায়ী বেতন দেওয়া হোক অথবা ২০১৯ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মিটিয়ে দিক রাজ্য সরকার । তবে ডিসেম্বর মাসে এই রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন জানায় রাজ্য সরকার। ১৫ ফেব্রুয়ারি এই মামলার পরবর্তী শুনানি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here