ডেস্ক: চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুখবর! প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের উপর যে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়েছিল তা তুলে নিল সুপ্রিম কোর্ট। হাইকোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যে মামলা দায়ের হয়েছিল তার প্রেক্ষিতে ১ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিতাদেশ জারি করেছিল শীর্ষ আদালত। সেই স্থগিতাদেশই তুলে নিয়ে সোমবার পুনরায় মামলাটি হাইকোর্টে পাঠিয়েছে বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি হেমন্ত গুপ্তার ডিভিশন বেঞ্চ।

২০১৪ সালে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ পায়। ২০১৫ সালে ১১ অক্টোবর যে পরীক্ষা হয় তাতে উপস্থিত হন প্রায় ২৩ লক্ষ প্রার্থী। কিন্তু, ১১টি প্রশ্নপত্রের উত্তরের যে চারটি অপশন দেওয়া হয়েছিল, তার সবকটিই ছিল ভুল। ফলে, এই মামলাটি যায় হাইকোর্টে। সুরাহা চেয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ১০০ জনের বেশি চাকরিপ্রার্থী। বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় বিশ্বভারতী কতৃর্পক্ষকে প্রশ্ন ও উত্তরগুলি পরীক্ষা করে মতামত জানানোর নির্দেশ দেন। রিপোর্টে দেখা যায়, সত্যিই বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর ভুল রয়েছে।

এই মামলার নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্ট জানায়, নম্বর যুক্ত হওয়ার পর যদি প্রার্থীরা চাকরি পাওয়ার মাপকাঠি অতিক্রম করে তবে সে সব প্রার্থীদের চাকরি দিতে হবে। কিন্তু এই সুযোগ পাবেন কেবল মামলাকারীরা। হাইকোর্টের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করেই সুপ্রিম কোর্টে যান এক চাকরিপ্রার্থী। সেই প্রেক্ষিতে প্রাথমিক শিক্ষকের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করে সুপ্রিম কোর্ট। যা তুলে নেওয়া হল সোমবার।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here