ডেস্ক: নিজের সিনেমার জন্য এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে রাজি নন অভিনেতা-প্রযোজক দেব। সেটা নিজের প্রযোজনা সংস্থার সিনেমা ‘ককপিট’ বিমানে মিউজিক লঞ্চ বা ট্রেনে শুটিং। এবারে তাঁর আগামী সিনেমা ‘কবীর’ নিয়ে করলেন আরও এক অভিনব প্রচার। সন্ত্রাসবাদ নিয়ে দেব বানিয়েছেন এই সিনেমা। আমরা সকলেই জানি এই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কীভাবে লড়াই করে আমাদের দেশের এসটিএফ বা কম্যান্ডোরা। সেটা তাজ,ওবেরোয় তে হোক বা জার্মান বেকারি। তাঁদের জন্যই আজ আমরা সুরক্ষিত। কিন্তু তাঁর বিনিময়ে কিছুই পায়না তাঁরা। নিশব্দে লড়াই করে বাঁচিয়ে যায় প্রাণ। নিজেদের প্রানের বিনিময়ে। তাঁদেরকেই সন্মান জানাতে সমাজের আসল হিরোদের সামনে নিয়ে এলেন দেব। ৫ ই এপ্রিলের সন্ধ্যায় কসবার অ্যাক্রোপোলিস মলে কলকাতা পুলিশের এসটিএফের সদস্যদের নিয়ে এক অভিনব কায়দায় প্রচার করেন দেব। কীভাবে একটি মলে জঙ্গীরা পনবন্দি করলে আপনাকে বাঁচানোর জন্য এসটিএফ কাজ করবে সেটা নিয়েই প্রচার করলেন টিম ‘কবীর’। এই ঘটনাকে বলে মক ড্রিল। এটা একটা ডেমো মক ড্রিল। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা দেব,রুক্মিনী মৈত্র,প্রিয়াঙ্কা সরকার,অর্ন মুখোপাধ্যায়, পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার ও কলকাতা পুলিশের এসটিএফ প্রধান মুরলীধর শর্মা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকার জানান ”“এতদিন শুধু খবরের কাগজ পরে বা টিভির পর্দায় এই স্পেশাল ফোর্সের কথা শুনতাম। ছবির পর্দায় এই প্রথম এরকম একটা চরিত্র করলাম। সিনেমায় নিজেকে এসটিএফ-এর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার একটা ছোটো চেষ্টা করেছি মাত্র। কী অসম্ভব পরিশ্রম করতে হয়, এই মানুষগুলোকে শুধুমাত্র আমাদের সুরক্ষিত রাখার জন্য। কলকাতা পুলিশের সকল কর্মীদের ধন্যবাদ জানাই।” এই সিনেমাতে প্রিয়াঙ্কা এসটিএফ প্রধান-এর ভূমিকায় অভিনয় করছেন।

দেব জানান ”সমাজের মানুষদের জন্য আমাদের কিছু করার আছে। তাই ‘কবীর’ নিয়ে চিন্তাভাবনা করি। আমি আর অনিকেতদা অনেক রিসার্চ করে জানতে পারি কী পরিমান পরিশ্রম করে এসটিএফরা তাই আমার মনে হয়েছিল তাঁদের একটা সন্মান দেওয়ার প্রয়োজন আছে আমাদের তরফ থেকে।” এই বিষয় নিয়ে পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায় বলেন ”কবীর একদম সঠিক সময় বানানো হয়েছে ঠিক যে সময় গোটা দেশে দাঙ্গা, সাম্প্রদায়িকতা মাথা চাড়া দিয়েছে ঠিক সেই সময় কবীর। আমার মনে হয় বাংলায় এমন কোন সিনেমা হয়নি যেখানে আতঙ্কবাদীকে নিয়ে ডিল করা হয়েছে। আবার এই সিনেমার মাধ্যমে একটা মেসেজ দেওয়া হয়েছে।” দেব এও বলেন যে রিল লাইফ এর হিরো আমরা আর রিয়্যাল লাইফের হিরো হল আমাদের দেশের সেনারা,এসটিএফের সদস্যরা।

দেব বলেন ”আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার ও STF প্রধান মুরলীধর শর্মাকে ধন্যবাদ দেব এরকম একটা দিনে আমাদের পাশে থাকার জন্য। এদিন কলকাতা পুলিশের এসটিএফ এর সদস্যরা একটি ছদ্ম নাটিকার মাধ্যমে দেখান তাঁদের মক-ড্রিল অপারেশন। আগামী ১৩ এপ্রিল মুক্তি পাবে ‘কবীর’। এটা দেব এন্টারটেইনমেন্ট ভেঞ্চার্সের প্রযোজিত তৃতীয় সিনেমা। ‘কবীর’-এর কলকাতায় আগমনে এসটিএফের মক ড্রিল