থানার অদূরে দোকানের চালের অ্যাসবেস্টস ভেঙে দুঃসাহসিক চুরি, পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন

0
41

নিজস্ব প্রতিবেদক, হাবরা: থানা থেকে ঢিল ছোড়া দুরত্বে অবস্থিত একটি স্টেশনারি দোকানের চালের অ্যাসবেস্টস ভেঙে চুরি হয়ে গেল নগদ ২ লক্ষ টাকা সহ লক্ষাধিক টাকার সামগ্রী। রবিবার রাতে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবরা ব্লকের যশোর রোডে দুঃসাহসিক এই চুরির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। থানার অদূরে এই চুরির ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন দোকানের মালিক বিশ্বজিৎ দত্ত ওরফে বাপ্পা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, হাবড়া থানার অদূরে যশোর রোডের পাশেই বাপ্পা দত্তর স্টেশনারি দোকানটি অবস্থিত। অন্যান্য দিনের মত রবিবারও রাত ১টা নাগাদ দোকান বন্ধ করে বাড়িতে যান বিশ্বজিৎবাবু। তারপর সোমবার সকালে দোকানে এসে সাটার তুলে ভিতরে ঢুকতেই তাঁর চক্ষু চড়কগাছ! দোকানের ভিতর চারপাশে জিনিসপত্র ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। ড্রয়ারও ভাঙা এবং টাকাকড়ি কিছু নেই। বন্ধ কারখানার ভিতর কীভাবে চোর ঢুকল তা প্রথমে বুঝতে পারেননি বিশ্বজিৎবাবু। তারপর উপরের দিকে চোখ পড়তেই দেখেন, দোকানের চালের অ্যাডবেস্টস ভাঙা। চোরের দল যে ওই অ্যাসবেস্টস ভেঙেই দোকানের ভিতর ঢুকেছিল এবং চুরি করে সেখান দিয়েই পালিয়েছে তা আর বুঝতে অসুবিধা হয়নি বিশ্বজিৎবাবু। এরপর তিনি হাবরা থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

বিশ্বজিৎবাবু পুলিশকে জানিয়েছেন, সোমবার মহাজনের দেনা শোধ করার ছিল। সেজন্য নগদ দু’লক্ষ্য টাকা দোকানের ড্রয়ারেই রাখা ছিল। সেই পুরো টাকা খোয়া গিয়েছে। এছাড়া পাইকারী বেশ কিছু সামগ্রী চুরি গিয়েছে। যার আনুমানিক বাজার মুল্য প্রায় ১ লক্ষ টাকা। সবমিলিয়ে, তাঁর প্রায় ৩ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বজিৎবাবুর অভিযোগের ভিত্তিতে চোরেদের খোঁজ শুরু করেছে হাবরা থানার পুলিশ। তবে থানার অদূরে এবং সিসি ক্যামেরা থাকা সত্ত্বেও কীভাবে দোকানের অ্যাসবেস্টস ভেঙে চুরির ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে এলাকাবাসী।

ব্যবধানে গভীর রাতে দুঃসাহসীক চুরি।ঘটনাটি রবিবার গভীর রাতে হাবড়া থানার যশোর রোডের পাশেই একটি স্টেশনারি দোকানে।থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে পুলিশ।প্রতিদিনের মতোই
9804184753

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here