ডেস্ক: আসন্ন ২০১৯ লোকসভায় ভোটযুদ্ধে নামার আগে নিজেদের মাটি আরও বেশি পরিমাণে শক্ত করতে সক্রিয় সবদলই। সব রাজ্যের মতই বাংলার পক্ষে লোকসভা নির্বাচন এক অগ্নিপরীক্ষাই বটে। তাই এখন চরম সতর্ক হয়ে বুঝেশুনে পা ফেলছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এমন পরিস্থিতিতে লোকসভার আগে রাজ্যে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ ভোট করতে ইচ্ছুক নয় রাজ্য সরকার। এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

চলতি বছরেই তিন রাজ্যে বিধানসভা ও পরের বছর লোকসভা নির্বাচন। তার আগে কোনওরকম ভোট করতে রাজি নয় রাজ্যে সরকার। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, চলতি বছরে আর কোনও নির্বাচন হবে না। যা হওয়ার লোকসভার পরেই হবে। শিক্ষামন্ত্রীর এমন মন্তব্যের পর রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছে, এি বছর না হলে পরের বছর শুরুতেও হবে না ছাত্র সংসদ নির্বাচন, কারণ বছরের শুরুতেই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। এই পরীক্ষা শেষ হলে তার কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে লোকসভা ভোটের চূড়ান্ত প্রস্তুতি এবং তার কিছুদিনের মধ্যেই ভোট। সুতরাং, ছাত্র সংসদ নির্বাচন করতে গেলে সেটি মূলত মে মাসের দিকেই করতে হবে।

এই নির্বাচন এখন না করার অন্য কারণও রয়েছে। রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে এমনতিই কিছুটা ব্যাকফুটে রয়েছে শাসকদল। আর ছাত্র সংসদ নির্বাচনও যে খুব সুশৃঙ্খলভাবে হবে না তাও সকলেই জানেন। সেই কারণেই লোকসভার আগে বিরোধীদের আর কোনও সুযোগ দিতে চাইছেনা তৃণমূল। লোকসভা নির্বাচনের আগে আরও একটি ভোট হলে রাজ্যে যদি আবার বিশৃঙ্খলতার সৃষ্টি হয় তবে বিরোধীদের মূলত বিজেপির জন্য তা হবে পোয়া বারো। আর সেটি যে লোকসভায় বাংলারর ৪২ টি আসনকে সরাসরি প্রভাবিত করবে তা খুব ভাল করে জানেন শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীরা। তাই এই ভোটের কন্টক ভরা সময় কোনওরকম ঝুঁকি নিতে নারাজ রাজ্য সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here