ডেস্ক: অনশন বিক্ষোভের পর অবশেষে জয় পেল যাদবপুর। অনশনরত ছাত্রছাত্রীদের দাবি মেনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরানো হল প্রবেশিকা পরীক্ষা। মঙ্গলবার কর্মসমিতির রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পর নিজেদের সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হঠল কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে নেওয়া হল নতুন সিদ্ধান্তও। এদিনের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রবেশিকা পরীক্ষার পাশাপাশি এখন থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমতুল্য পরীক্ষার মোট নম্বর ও বিষয়ভিত্তিক প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ভর্তি নেওয়া হবে পড়ুয়াদের।

যাদবপুরের পাশে গত কয়েকদিন ধরেই ঝুলছিল একটি প্রশ্নচিহ্ন। প্রবেশিকা নাকি বোর্ডের নম্বর অনুযায়ী মেধাতালিকা? পড়ুয়াদের দাবি ছিল প্রবেশিকা পরীক্ষা, কিন্তু কর্তৃপক্ষ চাইছিল মেধাতালিকা অনুযায়ীই নেওয়া হোক ভর্তি। সেই নিয়েই চলছিল দীর্ঘ জল্পনা। মঙ্গলবার যা নিয়ে বৈঠকে বসে কর্মসমিতি। কিন্তু বৈঠকের প্রথমার্ধে কোনও রফাসুত্র না বেরোলেও পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় প্রবেশিকা পরীক্ষাই ফেরানো হবে যাদবপুরে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এহেন সিদ্ধান্তে স্বভাবতই খুশি পড়ুয়ারা।

উল্লেখ্য, গত ৭ দিন ধরে রীতিমতো উত্তাল ছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। এই বছর কলা বিভাগের প্রবেশিকা পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল ৩ থেকে ৬ জুলাই-এর মধ্যে৷ কিন্তু, সোমবার আইনি জটিলতার কারণ দেখিয়ে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। নোটিশও জারি করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে। বিক্ষোভ, উপাচার্যকে ঘেরাওয়ের পর অনশনে বসে ছাত্রছাত্রীরা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার দাবি জানিয়ে রাজ্যপাল ও শিক্ষামন্ত্রীর দ্বারস্ত হন উপাচার্য। তবে মেলেনি কোনও সমাধান। অবশেষে কর্মসমিতির বৈঠকের পর স্বস্তি ফিরল যাদবপুরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here