news bengali kolkata

নিজস্ব প্রতিবেদক, জলপাইগুড়ি: করোনা ঠেকাতে পরীক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে পরীক্ষা স্থগিত রাখার আর্জি জানানো হয়েছিল বিধায়ক এবং বিডিও-র কাছে। স্মারকলিপি দিয়ে বলা হয়েছিল উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত রাখতে হবে। করোনা ঠেকাতে আর্জি জানানো হয়েছিল রাত থেকে জমায়েত হয়েই। সকালে পরীক্ষার্থীরা স্মারকলিপি জমা দেন। এই পরিস্থিতিতে নির্দেশিকা জারি করে স্থগিত রাখা হয়েছে পরীক্ষা। তবে প্রশ্ন উঠছে আর্জি জানাতে জমায়েত কেন? কোভিড ১৯ সংক্রমণ এড়াতে জমায়েতেও না বলা হয়েছে। যা নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। অবশ্য পরীক্ষা স্থগিত হওয়ায় খুশি শিক্ষার্থীরা।

রাজ্যজুড়ে স্কুল কলেজ বন্ধের নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে। ক্লাস বন্ধ হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত ছিল না। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত রাখার দাবিতে বুধবার সন্ধ্যায় জলপাইগুড়ির ধূপগুড়ির ডাকবাংলো চত্বরে জমায়েত হয় পরীক্ষার্থীরা। তাদের দাবি ছিল, এই মুহূর্তে রাজ্য-দেশ জুড়ে করোনা আতঙ্ক। সেইদিকে নজর দিয়ে স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশিকা জারি হয়েছে।কিন্তু পরীক্ষা স্থগিত রাখা হয়নি। ফলে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের ট্রেন, বাস সহ বিভিন্ন ভাবে যাতায়াত করতে হয়। তাই আতঙ্ক থেকেই যায়।

জমায়েত হয়ে তাদের দাবি ছিল, পরীক্ষা যদি ১৫ এপ্রিলের পর নেওয়ার। বলা হয়েছিল পরীক্ষার্থী সহ সকলের কথা ভেবেই এই দাবি। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এই দাবি নিয়ে পরীক্ষার্থীরা ধূপগুড়ির বিধায়ক মিতালী রায় এবং ধূপগুড়ির ব্লক উন্নয়ন আধিকারিকের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দেয়। কিছুক্ষনের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে নোটিশ দিয়ে বলা হয়, পরীক্ষা সাময়িক ভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে। আগামী ১৫ এপ্রিলে পর পরীক্ষার দিন ধার্য করার জন্য ৩১ মার্চ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলেও জানানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here