ঠিক সময়ে পুলিশ ডাকলে বাড়াবাড়ি হত না! উপাচার্যকে ঠুকে যাদবপুর ‘খেলা’ জমালেন সুব্রত

0
391
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র হেনস্থার ঘটনায় রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে রাজ্য সরকার তথা তৃণমূল কংগ্রেস। স্পষ্ট জানানো হয়েছে, সরকার পক্ষের সিদ্ধান্ত না জেনেই তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে ‘উদ্ধারে’ গিয়েছিলেন। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজভবন এবং নবান্ন তরজা হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেই দলের বিপরীতে ছুটলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়! দলীয় সুরে সুর না মিলিয়ে এই কাণ্ডে সরাসরি উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে কাঠগড়ায় তুললেন তিনি। জানালেন, সঠিক সময়ে উপাচার্য পুলিশ ডাকলে এত বড় কাণ্ডই হত না।

যাদবপুরের গোটা ঘটনা নিয়ে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ক্যাম্পাসে পুলিশ ডাকার অধিকার একমাত্র উপাচার্যের রয়েছে। সঠিক সময়ে পুলিশ ডাকলে গতকালের ঘটনা এত বড় আকার ধারণ করত না বলেই দাবি তাঁর। পুরো ঘটনার দায় উপাচার্যের, সেই দায় তিনি এড়াতে পারেন না বলেই মত সুব্রতর। তবে শুধু যে উপাচার্যকে কাঠঘড়ায় তিনি তুলেছেন তা নয়। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কেও একহাত নিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, যাদবপুরে বাবুলের যাওয়া, হেনস্থা হওয়া, পরে রাজ্যপালের যাওয়া সবই নাটক, এই নাটকের প্রস্তুতি অনেক আগে থেকেই ছিল।

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের এই মন্তব্য স্বভাবতই অস্বস্তি বাড়িয়েছে তৃণমূল সরকারের। কারণ, তৃণমূল ঘটনার পর থেকেই বাবুল সুপ্রিয় এবং রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে। সেই প্রেক্ষিতে সুব্রতর সরাসরি উপাচার্যকে ‘দোষী’ চিহ্নিত করা হজম হয়নি দলের। তবে শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মত, ওই মন্তব্য সুব্রতর নিজের, ওটা দলের নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here