নিজস্ব প্রতিবেদক, ডেস্ক: চাকরির পরীক্ষা দিতে এসে কলকাতায় দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল প্রেমিকের। ঠিক তার নয়দিনের মাথায় সেই শোকে আত্মঘাতী হলেন প্রেমিকা।

জানা গিয়েছে, গত ৩০ সেপ্টেম্বর দমদম স্টেশনে ট্রেন ঢোকার সময় ট্রেন থেকে পড়ে মারা গিয়েছিলেন পূর্ব মেদিনীপুরের এগরার বাসিন্দা নিত্যানন্দ দাস। ওই দিন নিত্যানন্দার পাবলিক সার্ভিস কমিশনের চাকরির পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষা দিতে যাওয়ার সময় পথ দুর্ঘটনাটি ঘটে। সুত্রের খবর আগের দিন অর্থাৎ ২৯ সেপ্টেম্বর তিনি এগরা থেকে এসেছিলেন বেলঘরিয়াতে এক আত্মীয়ের বাড়িতে। এরপর বেলঘরিয়া থেকে শিয়ালদহগামী ডাউন কৃষ্ণনগর লোকালে ট্রেনের দরজায় দাঁড়িয়ে মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন নিত্যানন্দ। সেই সময় অসতর্কতার জন্যই আচমকা ট্রেন থেকে পড়ে যান তিনি এবং মৃত্যু হয় তার।

প্রেমিকের মৃত্যুর খবরটা পরের দিনই জেনেছিলেন এগরার দোবাঁধি-মির্জাপুরের বাসিন্দা দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী শ্রেয়সী মাইতি। সোমবার সকালে বাড়ির চিলেকোঠার ঘরে ওই কিশোরীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেন পরিবারের লোকজন। ঘটনায় শ্রেয়সীর কাকা দেবব্রত মাইতি জানান ‘সকালে বাড়িতে কেউ ছিল না। মেয়েকে দেখতে না পেয়ে ওর মা চিলেকোঠায় পড়ার ঘরে যায়। সেখানেই দেখে গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে ঝুলছে শ্রেয়সী।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here