খোলা রেলগেট, চলে এল ট্রেন! অল্পের জন্য রক্ষা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্ধমান: রেলগেট খোলা। নিয়ম মেনে লাইন পারাপার করছে লোকজন। পারাপার করছে গাড়িও। আচমকাই হুড়মুড়িয়ে চলে এল ট্রেন! যেন শিয়রে সমন মৃত্যুর! শেষপর্যন্ত কোনও অঘটন না ঘটায় বাঁচোয়া। তবে আতঙ্ক এখনও তাড়া করছে মানুষকে।

সোমবার বিকেলে অল্পের জন্য বড়সড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল বর্ধমানের মেমারি থানার দেবীপুর রেলগেট দিয়ে চলাচলকারী অসংখ্য মানুষ। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেলে রেলগেট খোলা থাকায় যথারীতি যানবাহন চলাচল করছিল। রেলগেট দিয়ে পার হচ্ছিল একটি যাত্রিবাহী ভলভো বাসও। সেই সময় আচমকাই ডাউন লাইনে চলে আসে ‘মা তারা এক্সপ্রেস’। খুব অল্পের জন্য প্রাণ বাঁচেন অসংখ্য মানুষ।

এই ঘটনায় প্রশ্ন উঠেছে রেলের নিরাপত্তা নিয়ে। কেনই বা বন্ধ হল না গেট, কেনই বা লাইনের উপর যানবাহন দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় চলে এল ট্রেন- এসব নানা প্রশ্ন ওঠে। যদিও দেবীপুর স্টেশনের কর্মীরা জানিয়েছেন, দেবীপুর লেভেল ক্রসিংয়ের গেটটি খারাপ হয়ে যায়। তাই রিভার্স লাইন দিয়ে ‘ডাউন মা তারা এক্সপ্রেসকে’ পার করানো হয়। তবে গতি ছিল মাত্র ১৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। যদিও এই ঘটনায় এলাকার মানুষজন পাল্টা অভিযোগ করেছেন রেলের গাফিলতি নিয়ে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, দেবীপুর রেলগেটের পাশে আপ প্ল্যাটফর্ম থেকে কোনও রাস্তা না থাকায় যাত্রীদের রেললাইন ধরেই রেলগেটে আসতে হয়। একইসঙ্গে এই রেলগেটের ওপর দিয়েই প্রতিনিয়ত অসংখ্যা যাত্রিবাহী বাস, লরি-সহ বহু যানবাহন চলাচল করে। বাসিন্দাদের অভিযোগ, রেলগেটের কর্মী অধিকাংশ সময়ই নেশাগ্রস্ত হয়ে থাকেন। তাই সঠিক সময়ে রেলগেট নামাতে পারেন না। দুর্গাপুজোর সপ্তমীর দিনও এই রেলগেটে একজন কাটা পড়ে মারা যান। এলাকাবাসী দাবি করেছে, বারবার এই ঘটনায় রেল কর্তৃপক্ষ উপযুক্ত ব্যবস্থা নিক- যাতে সাধারণ মানুষকে আর দুর্ভোগে পড়তে না হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here