kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ক্ষমতা হারানোর পাশাপাশি বিরোধী দলের তকমাটাও হারিয়েছে সিপিএম। তবে কংগ্রেসকে পাশে নিয়ে শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে বিন্দুমাত্র কার্পণ্য করেনি বামেরা। তারই প্রতিফলন দেখা গেল মঙ্গলবার। বিধানসভা কক্ষে বসে বিরোধী দল কংগ্রেসকে পাশে নিয়েই চাচাছোলা ভাষায় তৃণমূল সরকারকে আক্রমণ শানালেল বামেদের পারিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। এদিন তিনি বলেন, এই সরকারের আমলে কলকাতাতে যা হচ্ছে তা সভ্য সমাজের কলঙ্ক।

বিগত কয়েকমাস ধরে একনাগাড়ে চলা শিক্ষক আন্দোলনকে মাধ্যম করে এদিন রাজ্যসরকারকে একহাত নিয়ে সুজনবাবু বলেন, গোটা দেশের মধ্যে এই রাজ্যে সবচেয়ে কম মাইনে পান শিক্ষক ও কর্মীরা। বেতন কমিশন শেষ কবে হয়েছিল মানুষ ভুলে গিয়েছে। অথচ এই সবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার কোনও অনুমতি নেই। বিরোধীদের তরফে রাজ্যে মিটিং মিছিলের অনুমতি নেই। কলকাতায় যা হচ্ছে তা সভ্য সমাজের কলঙ্ক। আপনি এফআইআর করবেন? নেব না। মমতাকে চিঠি দিলে নেবে না। রিসিভ কপি দেবে না। আপনাকে ঘোরাবে। এটা কি অঘোষিত জরুরী অবস্থা চলছে রাজ্যে? আর সরকারের এই কাজকর্ম কেন্দ্রীয় সরকারকে সাহায্য করছে। ওদের সমস্ত কাজ কর্মের ধাঁচে এই রাজ্যে সরকার চলছে। এটা কখনও ভালো হতে পারে না।

এরপর সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একহাত নিয়ে সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘আইএএস, আইপিএসদের উনি কোনও সম্মান দেন না। যাইহোক, উনি বললেন রাস্তা থেকে টাকা তোলা যাবে না। রাস্তায় টাকা নয় মানে কী? এবার কি তবে বাড়ি টু বাড়ি টাকা তোলা হবে?’ এরপর আরও আক্রমণাত্মক হয়ে তিনি বলেন, ‘আসানসোলের কয়লা এলাকা থেকে মাঝরাতে পুলিশ পাহারায় ওই সমস্ত গাড়িগুলি কোথায় যায়? কি যায় সেই গাড়িতে যার জন্য পুলিশকে পাহারা দিয়ে নিয়ে যেতে হয়? বৈধ জিনিস না অবৈধ?’ সুজনের এহেন মন্তব্যে রাজনৈতিক মহলের অনুমান। কয়লা খাদান সমৃদ্ধ আসানসোলে কয়লা মাফিয়া ও তাতে পুলিশের প্রত্যক্ষ সমর্থনকে একহাত নিয়েছেন সুজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here