ডেস্ক: গতকাল গভীর রাতে সুপ্রিম দ্বারে আইনি লড়াই চালিয়েও ইয়েদুরাপ্পাকে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার থেকে আটকাতে পারেনি কংগ্রেস। প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টার আইনি লড়াই পেরিয়ে স্বস্তি পেয়েছেন ইয়েদুরাপ্পা। কিন্তু আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তিনি যদি বিজেপি সমর্থনকারী ১১২ জন বিধায়কের তালিকা না তুলে দিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রীর পদ খোয়াতে হতে পারে ইয়েদুরাপ্পাকে। এই ‘সমর্থন পত্র’-এর তালিকায় কর্ণাটকের বিজেপির জন্য নতুন করে মাথাব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে।

২২২টি আসনের মধ্যে ১০৪টি আসন পেয়ে বৃহত্তর সমর্থন রয়েছে বিজেপির ঝুলিতেই। কিন্তু একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের থেকে ৮টি আসন পিছিয়ে রয়েছে গেরুয়া শিবির। ম্যাজিক ফিগারের থেকে বিজেপি দূরে থাকলেও ভোটের ফলপ্রকাশের পর হাতে হাত রেখেছে কংগ্রেস ও জেডিএস। তাদের জোট আসনের পরিমাণ ম্যাজিক ফিগার পেরিয়ে গেলেও রাজ্যপাল বিজেপিকে সরকার গঠনের প্রথম সুযোগ দিয়েছেন। একই সঙ্গে ১৫ দিনের মধ্যে বিজেপির সংখ্যাগরিষ্ঠতাও প্রমাণ করতে বলা হয়েছে তাকে।

অন্যদিকে, সুপ্রিম কোর্ট ইয়েদুরাপ্পাকে শপথ নেওয়ার ক্ষেত্রে না আটকালেও কংগ্রেসের আবেদনের ভিত্তিতে মামলাটির শুনানি চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছে। আগামীকাল অর্থাৎ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় ফের শুনানি হবে এই মামলার। এই শুনানির আগেই ইয়েদুরাপ্পাকে নিজের সমর্থনকারী ১১২ জন বিধায়কের তালিকা পেশ করতে হবে সুপ্রিম কোর্টে। নির্বাচনের জয়ের পর ইয়েদুরাপ্পার কাছে এই মুহূর্তে ১০৪ জন বিজেপি বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। ফলে ঘোড়া কেনা বেচার খেলা না হলে এই অবস্থায় ১১২ জনের সমর্থনকারী বিধায়কের তালিকা জমা দেওয়া কার্যত অসম্ভব মনে বলেই মনে করা হচ্ছে। যদিও বিজেপির বিধায়কদের ক্রয় করার রেকর্ড উজ্বল হওয়ার ফলে এবং গতকাল থেকে বেশ কয়েকজন জয়ী কংগ্রেস বিধায়ক ‘নিখোঁজ’ থাকার ফলে সহজেই ইয়েদুরাপ্পা সেই তালিকা জমা করতে পারবেন বলে ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here