national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরাতে যে বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করা হয়েছে, তাতে মাঝখানের সিট অবশ্যই ফাঁকা রাখতে হবে। সোশ্যাল ডিস্টানসিং সুনিশ্চিত করার জন্য আজ এমনই নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। আগামী মাত্র ১০ দিন আর এই ধরণের বিশেষ বিমান (মাঝের সিটে যাত্রী নিয়ে) চালাতে পারবে এয়ার ইন্ডিয়া। এমনটাও জানিয়েছে শীর্ষ আদালত।

তবে এই নির্দেশ শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক বিমানের ক্ষেত্রেই দিয়েছে। অন্যদিকে, আজ থেকে অন্তর্দেশীয় বিমান পরিষেবা শুরু হয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরেই বিভিন্ন দেশে আটকে পড়াদের দেশে ফেরাতে ‘মিশন বন্দে ভারত’ শুরু হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে বলেন, ‘সোশ্যাল ডিস্টানসিং মেনে চলা এখন কমন সেন্স। দুই ব্যক্তির মধ্যে সবসময় ছয়ফুট দূরত্ব থাকা বাঞ্চনীয়।’

পাল্টা কেন্দ্রীয় সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, সিট ফাঁকা রাখার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ টেস্টিং করা ও যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে রাখা। আর বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করেই মাঝের সিটে যাত্রীদের বসানো হচ্ছে। এর উত্তরে বিচারপতি বলেন, ‘ভাইরাস সেটা বুঝবে কী করে? তাকে কি বলা হয়েছে বিমানের ভেতর সংক্রমণ করা যাবে না? কোনও যাত্রী আক্রান্ত হবেন না, এটা কি করে সুনিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে?’

এরপর যখন কেন্দ্রের তরফে বলা হয় ১৬ জুন পর্যন্ত সব বিমানের টিকিট বিক্রি হয়ে গিয়েছে, তখন সুপ্রিম বিচারপতি জানান, কয়েকদিন এই ব্যবস্থা চলুক। তারপর মাঝখানের সিট ফাঁকা রেখেই বিমান চালাতে হবে। প্রসঙ্গত, মার্চের ২৩ তারিখ সিভিল এভিয়েশনের ডিরেক্টরেট জেনারেলের পক্ষ থেকে মধ্যিখানের সিট ফাঁকা রাখার জন্য নির্দেশিকা জারি হয়। কিন্তু এয়ার ইন্ডিয়া সেই নিয়ম মানছে না বলে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন এয়ার ইন্ডিয়ারই এক পাইলট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here