ডেস্ক: দিল্লির উপরাজ্যপালকে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের। আবর্জনা পরিষ্কার না হওয়ায় উপরাজ্যপাল অনিল বৈজলকে সুপ্রিম কোর্ট তিরস্কার করে বলেছে, ‘আপনি বলছেন,’আমার ক্ষমতা আছে, আমি সুপারম্যান’। অথচ কোনও কাজই করেন না’। ঠিক এই ভাষাতেই দিল্লির উপরাজ্যপালকে তোপ দাগলেন সুপ্রিম কোর্ট। বৈজলকে শীঘ্রই দিল্লিকে আবর্জনামুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। শুধু তাই নয় জঞ্জাল পরিষ্কার করার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের পরিচয়পত্র ও নির্দিষ্ট পোশাক দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শীর্ষ আদালত। শুধু তাই নয় এই কাজের অগ্রগতির রিপোর্ট বেলা ২ টোর মধ্যে তলব করে পাঠিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

দিল্লিতে যে হারে আবর্জনার স্তুপ জমেছে তাতে করে খুব তাড়াতাড়ি দিল্লি আবর্জনায় ঢাকা পড়তে বলে আশঙ্কা আদালতের। এদিন শীর্ষ আদালতের তরফে উপরাজ্যপালকে জানতে চাওয়া হয়েছে এই আবর্জনা পরিষ্কারের দায়িত্ব কার। এই প্রশ্নের মুখে পড়ে উপরাজ্যপাল বলেন, আবর্জনা পরিষ্কারের দায়িত্ব পৌর সংস্থার, সেখানকার আধিকারিকরা নিজেই এই কাজ দেখভালের দায়িত্বে থাকেন। উপরাজ্যপালের এই জবাবের পরই বেজায় চটেছেন শীর্ষ আদালতের বিচারক। তাঁকে দ্রুত এই বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দিল্লিতে আপ সরকার দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যপাল সাথে উপরাজ্যপালের মনোমালিন্য লেগেই ছিল। কিছুদিন আগেই এক রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে দিল্লিতে কেজরিওয়াল সরকারেরই ক্ষমতা বহাল থাকবে। শুধুমাত্র তিনটি ক্ষেত্র (ভূমি, আইন-শৃঙ্খলা) ছাড়া অন্যান্য বিষয়ে রাজ্যপালের অনুমতি নেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই ক্যাবিনেটের। পাশাপাশি দিল্লিতে আপ সরকারের কাজে কোনও রকম বাঁধা সৃষ্টি না করার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। তবে এদিনের কোর্টের এই রায়কে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। এই ভর্ৎসনার পর রাজ্যপাল তাঁর দায়িত্বে কতটা ওয়াকিবহাল সেই নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here