ডেস্ক: পঞ্চায়েত ভোটকে কেন্দ্র করে ক্রমাগত হিংসা। বিরোধীদের মনোনয়ন জমা দিতে না দেওয়ার অভিযোগে পঞ্চায়েত ভোট বহুবার দ্বারস্থ হয়েছে আদালতে। সুরাহার পাশাপাশি বেড়েছে জটিলতাও। সুপ্রিমকোর্টে পঞ্চায়েত মামলাকে ঘিরে গতকালই ভর্ৎসিত হয়েছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। খবর থাকা সত্ত্বেও কেন নির্বাচন কমিশন কোনও ব্যবস্থা নেয়নি তার উত্তর দিতে পারেনি কমিশন। বুধবারের শুনানিতেও কোনও সুরাহা মিলল না পঞ্চায়েতের। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতা ৩৪ শতাংশ আসনে স্থগিতাদেশের পাশাপাশি, আগামী ৬ আগস্ট পঞ্চায়েত মামলায় যবনিকা টানা হবে বলে জানাল শীর্ষ আদালত।

রাজ্যের নির্বাচনকে ঘিরে হিংসার অভিযোগে একাধিক মামলা উঠেছিল আদালতে। তাঁর মাঝে একটি ছিল ই-মেলে মনোনয়ন জমা। সিপিএম-এর দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে ইমেলে মনোনয়ন জমা দেওয়াকে বৈধ বলে রায় দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে রাজ্য নির্বাচন কমিশন পাল্টা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়। ১০ মে হাইকোর্টের সেই রায়ের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করে সুপ্রিম কোর্টে। সেই সঙ্গে ৩৪ শতাংশ আসনে ফল ঘোষণার উপরও স্থগিতাদেশ জারি করে শীর্ষ আদালত। মঙ্গলবার সেই মামলার শুনানিতে কোণঠাসা ছিল নির্বাচন কমিশন। বুধবার ফের শুনানির আদালত জানিয়ে দিল রায় ঘোষণার তারিখ। ওই দিনই জানা যাবে ২০ হাজার ৭৬ প্রার্থীর ভবিষ্যৎও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here