দশ মাস আগে আমার স্ট্রোক হয়, তাই এখন অভিনয় করতে পারব না: সুরেখা সিক্রি

0
79

মহানগর ওয়েবডেস্ক: চলতি বছরে জাতীয় পুরস্কারের মাধ্যমে বলিউড পেয়েছে বেশ কিছু নতুন ট্যালেন্ট ও পুরানো প্রতিভাকে। তাঁর মধ্যে উল্লেখযোগ্য নাম হল সুরেখা সিক্রি। বলিউডে দীর্ঘদিন অভিনয় করছেন তিনি। চলতি বছরে ৬৬ তম জাতীয় পুরস্কারের তালিকায় তাঁর নাম আছে সেরা সহ-অভিনেত্রী হিসাবে। মূলত ‘বাধাই হো’ সিনেমার জন্য সুরেখা পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার। এটা নিয়ে তাঁর ঝুলিতে মোট তিনটি জাতীয় পুরস্কার রয়েছে। ১৯৮৮ সালে ‘তামাস’ ও ১৯৯৫ সালে ‘মাম্মো’ সিনেমার জন্য পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার।

এক সাক্ষাৎকারে তাঁর আগামী সিনেমা প্রসঙ্গে সুরেখা জানিয়েছেন, ”আমার কিছুদিন আগেই ব্রেণ স্ট্রোক হয়েছিল। সেই রোগ থেকেই এখন লড়াই করছি বাঁচার জন্য। বাড়িতে পড়ে গিয়েছিলাম শ্যুটিং করতে যাওয়ার আগে, তখনই মাথায় লাগে আমার। তারপরেই স্ট্রোক আসে আমার তাই এখন কাজ করতে পারছি না। তবে ডাক্তারেরা বলেছেন খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে যাব আমরা।” ‘বাধাই হো’ সিনেমার জন্য জাতীয় পুরস্কার নিজের ঝুলিতে তুলে নিয়েছেন সুরেখা সিক্রি। এই সম্পর্কে তিনি জানিয়েছেন, ”আমার মনে হয় এটার চিত্রনাট্য জাতীয় পুরস্কার পাওয়ার কারণ একটাই বিষয়টাই মূল এখন। পারিবারিক বিষয়ের উপর গল্প নিয়ে সিনেমা বানানো হয়েছে। কিছু ঘরে এমনই সম্পর্ক আছে, আমি খুবই গর্বিত যে মানুষ আমার চরিত্রটাকে ভালোবেসে পুরস্কার পেতে সাহায্যে করেছে। এখনও আমি অবাক হয়ে গিয়েছি। আমি মনে করি অনেক মানুষ আমাকে খুব ভালোবাসেন কারণ বাধাই হো সিনেমার জন্য।”

১৯৮৯ সালে সঙ্গীত নাটক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন সুরেখা সিক্রি। এছাড়াও টেলিভিশনে একাধিক ধারাবাহিকে কাজ করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। সেই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ”প্রত্যেকটা অ্যাওয়ার্ড আমার জীবনে গুরুত্বপূর্ণ। যখন প্রথম আমি জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলাম, তখন আমার পা চাঁদে পৌছে গিয়েছিল। খুবই বড় ব্যাপার। এত বড় অ্যাওয়ার্ড পাওয়া প্রত্যেক মানুষের জীবন বদলে দেবে। কারণ অনেক মানুষ আপনার সঙ্গে কাজ করতে চায়।” ‘বাধাই হো’ সিনেমাতে সুরেখা সিক্রি ছাড়াও অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল নীনা গুপ্তা, আয়ুষ্মান খুরানাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here