ডেস্ক: বিজেপি বা কংগ্রেসের তরফ থেকে প্রার্থী ঘোষণাতে বাকি রয়েছে কিছু সময়। কিন্তু বামেরা নিজেদের প্রথম দফার প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতেই প্রচারে নেমে পড়লেন লাল শিবিরের নেতারা। শুক্রবারই নিজের কেন্দ্রে প্রচারে নেমে পড়েছেন যাদবপুরের সিপিএম প্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য। অন্যদিকে মেদিনীপুর থেকে প্রচারে নেমেছেন সূর্যকান্ত মিশ্র। শুক্রবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদা থেকে নির্বাচনী মিছিলে অংশ নিয়ে মোদী ও মমতা উভয়কেই কটাক্ষ করেন তিনি। পাশাপাশি নুসরতকে প্রার্থী করার নিয়ে পার্কস্ট্রিক গণধর্ষণ কাণ্ডের খোঁচাও দেন তিনি।

এদিনের মিছিলে পুলওয়ামা ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে এর জন্য নরেন্দ্র মোদীকেই দায়ি করেন সূর্য। তাঁর দাবি, জওয়ানদের মৃত্যুর জন্য দায়ি মোদী। নরেন্দ্র মোদীই আসল দেশদ্রোহী। ‘এতজন জওয়ান যে মারা গেল এর দায় কে নেমে? কত দিন ধরে হেলিকপ্টার, বিমান চেয়ে এসেছে সিআরপিএফ। তাদের জন্য হেলিকপ্টার নেই। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নিজে কোথাও গেলে একসঙ্গে চারচারটে হেলিকপ্টার চলে আসছে। জওয়ানদের মৃত্যুর জন্য একমাত্র আপনি নরেন্দ্র মোদীই দায়ি। তাদের শবদেহর বিনিময়ে আপনি ভোট চাইতে আসছেন? কেউ যদি দেশদ্রোহী হয় সেটা আপনি।’

কেন্দ্রীয় সরকার তথা নরেন্দ্র মোদী যেমন সূর্যবাবুর নিশানায় ছিলেন, তেমনই ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্র থেকে অভিনেত্রী নুসরত জাহানকে প্রার্থী করা নিয়ে পার্কস্ট্রিট গণধর্ষণ কাণ্ডের খোঁচাও দেন তিনি। নুসরতের নাম না করে সূর্যবাবু বলেন, পার্কস্ট্রিটে ধর্ষণের ঘটনায় দোষীকে যে আশ্রয় দিয়েছিল, তাকে লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী বানিয়েছে। অন্যদিকে মিমি ও নুসরতকে যেভাবে ট্রোলিং-এর শিকার হতে হচ্ছে তার সমালোচনা করলেও তৃণমূলকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিকাশবাবু। বারুইপুরে প্রচারে গিয়ে তিনি বলেন, তৃণমূল একটি দুর্নীতিগ্রস্ত দল। তারাও ওই দলেরই প্রতিনিধিত্ব করছে। এর বেশি আর কিছুই না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here