Home Featured “সৌমিত্র আমার সতীর্থ, ওর কথা সিরিয়াসলি নিচ্ছি না” সহানুভূতির সুরে সৌমিত্রকে পাল্টা শুভেন্দুর

“সৌমিত্র আমার সতীর্থ, ওর কথা সিরিয়াসলি নিচ্ছি না” সহানুভূতির সুরে সৌমিত্রকে পাল্টা শুভেন্দুর

0
“সৌমিত্র আমার সতীর্থ, ওর কথা সিরিয়াসলি নিচ্ছি না” সহানুভূতির সুরে সৌমিত্রকে পাল্টা শুভেন্দুর
Parul

মহানগর ডেস্কঃ “অনেকে ফেসবুক করতে ভালোবাসেন। কেউ কেউ মাঝরাত্রে উঠেও ফেসবুক করেন। এদেরকে কেউ সিরিয়াসলি নেন না। আমিও সিরিয়াসলি নিচ্ছিনা।” সাংবাদিক বৈঠকে এভাবেই সৌমিত্র খাঁ এর অভিযোগের জবাব দিলেন রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাশাপাশি সৌমিত্রর প্রতি পাল্টা কোনো তিক্ত মন্তব্য থেকে নিজেকে বিরত রেখে তিনি সৌমিত্রর প্রতি নিজের সহানুভূতিপূর্ণ মনোভাব প্রকট করেন।

সাংবাদিকরা যখন তাঁকে প্রশ্ন করেন যে মন্ত্রী হতে না পারার জন্যই সৌমিত্র ফেসবুকে এই মন্তব্য গুলি করেছেন কিনা, তার উত্তরে শুভেন্দুর বক্তব্য, “আমি এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। সৌমিত্র আমার সতীর্থ।  আমি দিল্লী গেলে ওর বাড়িতে খাওয়া দাওয়া করি। ওর হয়ে আমি পূর্বে প্রচারও করেছি। ও আমার ভাই আগামীদিনে সংগঠনে এরপর সৌমিত্রের ভূমিকা কি হতে চলেছে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে শুভেন্দু বলেন, “এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবোনা। সাংগঠনিক সকল সিদ্ধান্ত রাজ্য সভাপতি দিলীপ দা নেবেন।”

প্রসঙ্গত এদিন শুভেন্দু অধিকারী দলকে একমুখী করে পরিচালনা করছেন এবং দলের ওপরে নিজেকে জাহির করে দিল্লীর কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বিভ্রান্ত করছেন, এই অভিযোগ এনে যুবমোর্চার রাজ্য সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। পাশাপাশি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধেও অযোগ্য হওয়ার অভিযোগ আনেন তিনি।

কিন্তু শুভেন্দু যে এর বিরুদ্ধে বিশেষ মুখ খুলতে নারাজ তা আজ স্পষ্ট হয়ে যায় সাংবাদিক বৈঠকে। এবং পাশাপাশি দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব সম্পূর্ণ দিলীপ ঘোষের ওপর ছাড়ার কথা বলে তাঁর ও রাজ্য সভাপতির মধ্যে যে কোনো মনোমালিন্য নেই সেই বিষয়টিও স্পষ্ট করতে চান শুভেন্দু। তবে বাস্তবেই রাজ্যের বিজেপি নেতাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক প্রকৃত পক্ষেই তাই কিনা সৌমিত্রের বক্তব্যের পর তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছেন অনেকেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here