ডেস্ক: প্রেমে পড়া বারণ, কারণে অকারণ, আঙুকে আঙুল রাখলেও হাত ধরা বারণ…..তোমায় যত গল্প বলার ছিল, সব পাপড়ি হয়ে গাছের পাশে ছড়িয়ে রয়েছিল, দাওনি তুমি আমায় সেসব কুড়িয়ে নেওয়ার কোনও কারণ…প্রেমে পড়া বারণ……তবে এত ‘বারণ’ থাকা সত্ত্বেও এ গানের প্রেমে আপনি পড়ে যেতেই পারেন। ৫ মার্চ প্রকাশ্যে এসেছে পরিচালক শিলাদিত্য মৌলিকের নতুন ছবি ‘সোয়েটার’-এর প্রথম গান ‘প্রেমে পড়া বারণ’। ইতিমধ্যেই দারুণ সাড়া ফেলেছে এই গান। গানটি গেয়েছেন লগ্নজিতা চক্রবর্তী, তাঁর গায়কি চেনা ছকের বাইরে, ‘বসন্ত এসে গেছে’ গানের মাধ্যমেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন এই শিল্পী। গানটি লিখেছেন ও সুর বেঁধেছেন রণজয় ভট্টাচার্য।

এ ছবিতে রয়েছে একটি সাধারণ মেয়ের গল্প। নাম তার টুকু। টুকুর মধ্যে আছে এক আপাদমস্তক মধ্যবিত্ত গন্ধ। টুকু ‘চলিয়ে বলিয়ে’ নয়, টুকু সবার সামনে দারুণ স্মার্টও নয়, টুকু আত্মবিশ্বাসহীন, টুকু খানিক স্বপ্নহীনও। পাহাড়ি মফসস্‌লে বেড়ে ওঠা আরও অনেক মেয়ের মতোই টুকু ভীষণই জাগতিক, টুকু ভীষণই সাধারণ। ভাগ্যচক্রে টুকুর হবু বর দাবি করে তাঁকে সোয়েটার বুনতে জানতে হবে। টুকু জানুক আর না জানুক, এমন পাত্র তো হাত ছাড়া করা যায় না, তাই টুকুর বাবা ‘মেয়ে অসাধারণ সেলাই জানে’ দাবী করে বিয়ের আগে মেয়েকে উলবোনায় পারদর্শী করতে তাঁকে আত্মীয়ের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন সোয়েটার বোনা শেখাতে। এখান থেকেই গল্পের বাঁকে বাঁকে পালটে যায় টুকুর জীবনযাপন। নাওয়া-খাওয়া ভুলে রাতদিন এক করে উল বুনতে থাকে টুকু। ‘সোয়েটার’-এর মধ্যে দিয়েই সে খুলে ফেলতে চায় ‘স্মার্ট না হওয়া’, ‘সাধারণ হয়ে থাকা’, ‘কোনও গুণ না থাকা’, ‘বিয়ে না হওয়া’ -ইত্যাদির জাল-জট। টুকু কি পারবে সবকিছু এড়িয়ে ‘সোয়েটার’-এর সঙ্গে সঙ্গে নিজের স্বপ্নগুলোকে ‘রঙিন’ করে বুনতে? তা জানতে হলে আমাদের অপেক্ষা করতে হবে ছবির মুক্তির জন্য।

মূল চরিত্র অর্থাৎ টুকু’র চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী ইশা সাহা। প্রমোদ ফিল্মসের সঙ্গে মিলে এই সিনেমার প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছে পিএসএস এন্টারটেইনমেন্ট। ঈশা ছাড়াও সিনেমায় রয়েছেন, খরাজ মুখোপাধ্যায়, জুন মালিয়া, সৌরভ দাস, শ্রীলেখা মিত্র, সিধু, অনুরাধা মুখোপাধ্যায় প্রমুখ। সঙ্গীত পরিচালনায় আছেন অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় ও রণজয় ভট্টাচার্য। চলতি বছরেই মুক্তি পেতে চলেছে ‘সোয়েটার’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here