কাশ্মীর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেই বৈঠকে বসব! মোদীকে শর্ত ইমরানের

0
775
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সুর নরম করলেও নিজের অবস্থান থেকে পিছু হটছেন না পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপের এই প্রথম ভারতের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি হলেন তিনি। তবে সেই বৈঠকে বসার আগে নয়াদিল্লির সামনে এক গুচ্ছ শর্ত রেখেছেন ইমরান। একমাত্র তা হলেই দুই দেশের প্রধানরা এক টেবিলে বসতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বুধবার পাকিস্তানি সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ইমরান বলেন, ইসলামাবাদের শর্ত যদি নয়াদিল্লি পালন করতে পারে তবেই জম্মু কাশ্মীর নিয়ে বৈঠকে বসার পরিস্থিতি তৈরি হবে।

পাক প্রধানমন্ত্রীর শর্ত, যতক্ষণ না ভারত সরকার জম্মু কাশ্মীর থেকে সমস্ত রকম নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে ততক্ষণ তিনি বৈঠকে বসবেন না। উপত্যকার বিশেষাধিকার হনন ও একে দু’ভাগে ভাগ করার পর থেকেই নিরাপত্তার বজ্র আঁটুনির মধ্যে রাখা হয়েছে কাশ্মীরকে। শ্রীনগরে নিষেধাজ্ঞা কিছুটা হলেও শিথিল হয়েছে। কিন্তু কাশ্মীরের পরিস্থিতি একই রয়ে গিয়েছে। ল্যান্ডলাইন পরিষেবা চালু হলেও ইন্টারনেট ও মোবাইল এখনও ব্যবহার করা যাচ্ছে না। একই সঙ্গে ১৪৪ ধারা এবং কার্ফু জারি থাকার কারণে সামাজিক অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে জমায়েতও করা যাচ্ছে না। এমতবস্থায় ইমরান খানের দাবি, কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তবেই ভারতের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসতে পারবেন তিনি। এটাই ইসলামাবাদের শর্ত বলেও জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় দিনকয়েকের মধ্যেই এক মঞ্চে ভাষণ দিতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী ও ইমরান খান। তার আগেই ইমরানের সুর কিছুটা হলেও বার্তাবহ বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল। কারণ কাশ্মীর প্রসঙ্গে পাকিস্তানকে ভারত সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ৩৭০ ধারা অবলুপ্তি নিছকই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে দরবার করেও পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ফাঁকা হাতে ফিরে আসতে হয়েছে। উপায় না পেয়ে পরমাণু যুদ্ধের উস্কানিও দিয়েছেন তিনি। কিন্তু কিছুতেই কিছু না হওয়ায় এখন কাশ্মীরের আবেগকে কাজে লাগিয়ে আলোচনার রাস্তা খোলা রেখে চলতে চাইছেন তিনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here