ডেস্ক: এ বার ট্যারেন্টুলা আতঙ্ক খোদ কলকাতায়। মারণ মাকড়সা থাবা বসালো তিলোত্তমার বুকে। রোমশ মাকড়সার কামড়ে অসুস্থ হয়ে পড়লেন দক্ষিণ কলকাতার এক মহিলা। বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আক্রান্ত মহিলাকে। জানা যায় মহিলাটির বয়স ৩২। তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল হলেও মাকড়সা নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে দক্ষিণ কলকাতার শহরতলিতে।

বৃহস্পতিবার সকালে গড়িয়াতে বাড়ির ঠাকুরঘরে পুজো করছিলেন পুতুল পৈলান নামে ওই মহিলা। পুজোর জন্য ঝুড়ি থেকে জবা ফুল তুলতেই তার ভিতর থেকে বেরিয়ে আসে একটা কালো রোমশ মাকড়সা। কিছু বোঝার আগেই সেই আটপেয়েটি পুতুলের ডান হাতের মাঝের আঙুলে কামড় বসায়। পুতুল প্রচণ্ড জ্বালা আর অসহ্য ব্যথা যন্ত্রণায় চিৎকার করে ওঠেন। তাঁর স্বামী ভাস্কর পৈলান বলেন, “প্রথমে হাত ঝেড়ে ফেলার চেষ্টা করেছিল পুতুল। তাতেও মাকড়সাটা কামড়ে ধরে রেখেছিল। শেষ পর্যন্ত টেনে ছাড়াতে হয়। তার সেই অবস্থা দেখে পরিবারের লোকজন দেরি না করে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান পুতুলকে। সেখানে প্রথমেই চিকিৎসক শ্যামল বেরা দু’টি ইঞ্জেকশন দেন।

চিকিৎসক বলেন, “পুতুলদেবীকে যখন নিয়ে আসা হয় তখন তিনি যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন। পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন, পুতুলকে কোনও পোকা কামড়েছে। ততক্ষণে রোগীর রক্তচাপ কমতে শুরু করে দিয়েছে। অ্যানাফাইলেটিক অর্থাৎ অ্যালার্জির সমস্ত লক্ষণ বাড়ছিল।এরপরে আমি তার পরিবারের লোককে মাকড়সাটি ধরে আনতে বলি। ওরা মাকড়সাটি মেরে এনে আমাকে দেখায়। তখনই বুঝতে পারি এই মাকড়সার সঙ্গে ট্যারেন্টুলা অনেক মিল আছে। সেইমত পুতুল দেবীর চিকিৎসা শুরু করি।

কিন্তু তার পরেও ব্যথা বা জ্বালা না কমায় তাঁকে ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওই চিকিৎসক জানিয়েছেন, “পরিবারের লোকজনকে ওই মাকড়সাটা ধরে নিয়ে আসতে বলি। তারা মাকড়সাটি মেরে নিয়ে আসেন। দেখে বোঝা যাচ্ছে, ট্যারেন্টুলা গোত্রেরই একটি বিষাক্ত মাকড়সা সেটি। এখন পুতুলদেবী অনেকটাই ভালো আছেন।””

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here