নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যপালের পদ থেকে অবসর নিয়ে সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন তথাগত রায়। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে যা কার্যত আগে দেখা যায়নি। তবে বিজেপিতে যোগ দিলেও এখনo পর্যন্ত সক্রিয় ভূমিকায় দেখা যায়নি তথাগত রায়কে। যা নিয়ে অনেকদিন আগেই প্রশ্ন তুলেছিল তৃণমূল। এবার সেই প্রশ্নের উত্তরেই সরাসরি ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরকে নিশানা করলেন প্রাক্তন রাজ্যপাল।

এদিন প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে পরপর দু’টি টুইট করেন তথাগত রায়। তারমধ্যে একটি টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘প্রশান্ত কিশোরের গুন্ডারা বিজেপি অফিসে হয়তো তালা ঝুলিয়ে দিল। কেউ কেউ চিৎকার করল, কেন আমাকে দলে যথাযোগ্য মর্যাদা দেওয়া হচ্ছে না? এর পর একটু খরচ করে বিজেপি-র অনৈক্য দেখানোর চেষ্টায় ট্রোল শুরু হল। পিকে-র এই খেলা অতি নোংরা। কেবল নোংরা নয়, বোকাবোকা।’

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই দলে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করতে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন মেঘালয় প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়। তাঁর বক্তব্য ছিল, দলে প্রাথমিক সদস্যপদের জন্য আবেদন করেছেন তিনি। সক্রিয় সদস্য পদের বিষয়টি বিবেচনা করবে দল। এদিকে তথাগত রায়ের এহেন বক্তব্যের পরেই শুরু হয়েছে জল্পনা। বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্য বিজেপির অন্দরে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছিল মুকুল রায়ের সঙ্গে দিলীপ ঘোষের ‘দ্বন্দ্ব’র কথা। এই নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছিল গেরুয়া শিবিরে। এরমধ্যেই তথাগত রায়ের সক্রিয় রাজনীতিতে প্রবেশ অনেকেই ‘তৃতীয় পক্ষ’র আগমন বলে মনে করছেন।

একাংশের ধারণা তথাগতর পিছনে রয়েছেন রাহুল সিনহা। তাঁদের মতে, তথাগতকে সামনে রেখে দলে নিজের স্থান পোক্ত করতে চাইছেন রাহুল সিনহা। যদিও সূত্রের খবর, রাহুলকে ততটাও গুরুত্ব দিতে নারাজ দিলীপ ঘোষ। যদিও এ বিষয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘নেতৃত্বের মধ্যে কোনও দ্বন্দ্ব নেই। তথাগতবাবু দলীয় রাজনীতিতে ফিরলে দল শক্তিশালী হবে। যদিও তার পর থেকে এখনো পর্যন্ত রাজনীতিতে সক্রিয় হতে দেখা যায়নি তথাগত রায়কে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here