মহানগর ওয়েবডেস্ক: আগামী কয়েকমাস বাদেই পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন। শাসক দল তৃণমূলের প্রধান প্রতিপক্ষ বিজেপি। আপাতত রাজ্য রাজনীতিতে প্রধান দুই প্রতিপক্ষকে নিয়ে আলোচনার থেকেও রাজ্য বিজেপি’র ক্ষমতার নতুন সমীকরণ কী হতে চলেছে সেই বিষয়টিই অনেক বেশি কৌতূহল তৈরি করেছে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

গত সপ্তাহেই তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া মুকুল রায়কে নিয়ে বিস্তর জল্পনা তৈরি হয়েছিল। তারপর গুঞ্জন ওঠে ভাটপাড়ার নেতা অর্জুন সিং’কে নিয়ে। দু’ক্ষেত্রেই জড়িয়ে পড়ে বর্তমান বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নাম। বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য খ্যাত রাজ্য সভাপতি দলীয় অন্তর্দ্বন্দ্বের জল্পনাকে আরও উসকে দিয়ে বলে দেন এই রাজ্যে বিজেপিকে ক্ষমতায় আনার জন্য তিনি একাই যথেষ্ট।

এবার সেই জল্পনায় আরও ইন্ধন দিতে এগিয়ে এলেন রাজ্য বিজেপি’র প্রাক্তন সভাপতি, মেঘালয়ের বর্তমান রাজ্যপাল তথাগত রায়। সম্প্রতি একটি ভিডিও আলোচনায় তিনি জানিয়েছেন রাজ্যপাল পদের মেয়াদ শেষে তিনি তার রাজনৈতিক জীবন ফের শুরু করতে চান পশ্চিমবঙ্গেই। কারণ তিনি মনে করেন রাজ্য নেতৃত্বের কিছু ‘’অযৌক্তিক’’ মন্তব্য দলের ভালোর   থেকে ক্ষতি করছে বেশি।

অযৌক্তিক মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বিজেপি’র প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘’উত্তর ভারতের ‘গরু আমাদের মা’ সংস্কৃতি পশ্চিমবঙ্গে চলে না। গরুর দুধে সোনা রয়েছে বা গোমুত্রে কোভিড–১৯ নিরাময় হয়, এই ধরনের মন্তব্য পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে কোনওভাবেই সাহায্য করবে না।‘’ কারুর নাম না করে তথাগত রায় বলেন, এই ধরনের মন্তব্য দলের ‘’ভালোর থেকে খারাপ করে বেশি‘’।

রাজ্যের প্রাক্তন সভাপতির এই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বর্তমান সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘’আমি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করব না কারণ আমি নিজের কানে কিছু শুনিনি।‘’ বর্তমান সভাপতি যাই বলুন, নাম না করে তারই করা মন্তব্যের প্রসঙ্গে দলের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি যে ভাবে আক্রমণ করে রাজ্য রাজনীতিতে তার প্রত্যাবর্তনের সংবাদ দিলেন, তার ফলে দিলীপ ঘোষকে আগামী নির্বাচনের আগে যে একই সঙ্গে ঘরে ও বাইরে যুদ্ধ চালাতে হবে সে বিষয়ে বিশেষ সন্দেহ নেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here