kolkata news

Highlights

  • সরস্বতী পুজোয় খাওয়াদাওয়ার জন্য পড়ুয়াদের কাছ থেকে জনপ্রতি নেওয়া হয়েছিল ৪৪০ টাকা
  • পড়ুয়াদের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হল নামমাত্র মুখরোচক খাবারের একটি প্যাকেট
  • প্রতিবাদে স্কুলের ভেতর শিক্ষকদের আটকে রেখে চলল বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়া: সরস্বতী পুজোয় খাওয়াদাওয়ার জন্য পড়ুয়াদের কাছ থেকে জনপ্রতি নেওয়া হয়েছিল ৪৪০ টাকা। এত বড় অঙ্কের টাকা নেওয়ায় পড়ুয়ারা ভেবেছিল দুপুরের পেটপুজোর জন্য পাওয়া যাবে ভাল খাবার। অনেকে তাই বাড়ি থেকে বেশি কিছু না খেয়ে স্কুলে গিয়েছিল বড় আশা নিয়ে। কিন্তু, একি! পড়ুয়াদের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হল নামমাত্র মুখরোচক খাবারের একটি প্যাকেট। যে প্যাকেটের মেরেকেটে দাম হবে মাত্র ৩০ টাকা। আর এই নিয়ে বেঁধে গেল ধুন্ধুমার কাণ্ড।

নদিয়ার রানাঘাট অনুলিয়া হাই স্কুলের ঘটনা। হাতে শুধু সামান্য মিষ্টির প্যাকেট পেয়ে ক্ষুব্ধ ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকরা ফেটে পড়েন ক্ষোভে। প্রতিবাদে স্কুলের ভেতর শিক্ষকদের আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। পড়ুয়াদের অভিযোগ, পুজোর জন্য স্টুডেন্ট প্রতি ৪৪০ টাকা চাঁদা নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ, সেই টাকা দিয়েই খাওয়ানোর কথা ছিল স্কুলের। কিন্তু এদিন খাওয়ানোর নামে স্টুডেন্টদের হাতে ৩০টাকা মূল্যের প্যাকেট দেওয়া হয়। আর এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে ছাত্রছাত্রীরা। পরে স্কুলে এসে শিক্ষকদের আটকে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা। যদিও অত টাকা চাঁদা নেওয়ার কথা অস্বীকার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

স্কুল কর্তৃপক্ষের এই দাবি মানতে নারাজ পড়ুয়া ও অভিভাবকরা। তাঁদের দাবি, বড় অঙ্কের টাকা নিয়ে নয়ছয় করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। এ এক প্রকার প্রতারণা করা হয়েছে তাঁদের সঙ্গে। স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন ভূমিকার তীব্র নিন্দা করেছেন এলাকার লোকজনের পাশাপাশি অভিভাবকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here