masterr

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের অফিসের সামনে বিক্ষোভে সরব হলেন শিক্ষকেরা। তাঁদের অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত কয়েকজন দুষ্কৃতী মিলে শিক্ষক ঐক্য মঞ্চ নামের এক সংগঠনের নেতা মইদুল ইসলামকে মারধর করে। রবিবার সেই ঘটনার প্রতিবাদেই নির্বাচনী আধিকারিকের অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন শিক্ষকরা। ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশের সঙ্গে তাঁদের ধ্বস্তাধ্বস্তি হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।

এই সংগঠনের আরও অভিযোগ, কোনও মহিলা পুলিশ ছাড়াই শিক্ষিকাদের ওপর আক্রমণ চালানো হয়। শনিবার ডায়মন্ডহারবারের গুরুদাস নগরে প্রচারে করতে যান বামপ্রার্থী ফুয়াদ হালিম। সেখানে থাকা কয়েকজন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাঁর ওপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় আহত হন ফুয়াদ। গোটা বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানানো হয়েছে। এমনকি কমিশনের তরফ থেকে রিপোর্ট তলব করেছে মুখ্য নির্বাচনী অধিকারিকের দফতর। এই ঘটনায় খবর পেয়ে ঐক্যমঞ্চের অন্যতম নেতা মইদুল ইসলাম ঘটনাস্থানে যান। অভিযোগ, তিনিও আক্রমণের শিকার হন। তাকেও মারধর করা হয়। এমনকি স্কুটার অবধি ভেঙে দেওয়া হয়।

এরপর তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিতসার পর ছেড়ে দেওয়া হয় মইদুলকে। পরে থানায় এফআইআর জানাতে গেলে পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে। আর তাঁরই প্রতিবাদে নির্বাচনী আধিকারিকের দফতরে গিয়ে হাজির হন ওই সংগঠনের ২৫ জন সদস্য। সেখানে পুলিশের সঙ্গে তাঁদের ধস্তাধস্তি হয় বলে খবর। পুলিশ কয়েকজনকে আটক করে। কিন্তু পরে অবশ্য তাদের ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here