মহানগর ওয়েবডেস্ক: বছর ১১ আগে পাকিস্তানে শ্রীলঙ্কান টিম বাস লক্ষ্য করে হয়েছিল জঙ্গি হামলা। সেই ঘা এখনও দগদগে। তারপর থেকে দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক ঘরে পাকিস্তান। তবে শেষ এক বছরে কিছুটা পরিস্থিতির পরিবর্তন হয়েছে। জঙ্গি হামলার বিভীষিকা ভুলে ফের আন্তর্জাতিক আঙিনায় ফিরছে পাকিস্তান। এরই মাঝে ফের সন্ত্রাস নিশানায় ক্রিকেট, এবারও সেই পাকিস্তানেই।

না এবার কোনও আন্তর্জাতিক ম্যাচের সময় নয়, সন্ত্রাসীদের নিশানায় আঞ্চলিক ক্রিকেট। বৃহস্পতিবার খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে দ্রাদার মামাজাই এলাকায় এএমএন ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল ছিল। সেখানেই ম্যাচ চলাকালীন জঙ্গি হামলা হয়। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজ সূত্রে খবর, ওই ফাইনাল ম্যাচ দেখতে প্রচুর দর্শক জড়ো হয়েছিলেন। স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা, আমলা, সাংবাদিকরাও ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী, যেই ম্যাচ শুরু হয়েছে তখনই নিকটবর্তী পাহাড়ি টিলা থেকে জঙ্গিরা গুলি ছুড়তে শুরু করে। সঙ্গে সঙ্গেই খেলোয়াড়, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ যে যেখানে পারেন প্রাণ ভয়ে পালন। মুড়ি-মুরকির মতো গুলি চালাতে থাকে দুষ্কৃতীরা। কিন্তু সৌভাগ্যের বিষয় কোনও হতাহতের খবর নেই। সঙ্গে সঙ্গেই ভেস্তে যায় ম্যাচ।

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কান বাসে হামলার পর থেকে পাকিস্তানে ক্রিকেট কার্যত বন্ধ ছিল। কোনও দেশই পাক সফরে যেতে রাজি ছিল না। ২০১১ সালে যৌথভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্বও হারায় পাকিস্তান। বেশ অনেক বছরই আরব আমিরশাহিতেই যাবতীয় হোম ম্যাচ খেলেন আফ্রিদিরা। যদিও ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছিল। এবার করোনা মহামারীর আগে পর্যন্ত পিএসএলের সব ম্যাচ পাকিস্তানেই হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here