মহানগর ওয়েবডেস্ক: প্রায় এক বছর হতে চলল নোভেল করোনা ভাইরাসের ‘আবির্ভাবের’। কিন্তু এখনও সেই ভাইরাসের আবির্ভাব কোথায় তাই সুস্পষ্ট নয়। চিনের পক্ষ থেকে প্রথম থেকেই দাবি করা হচ্ছে এই ভাইরাস বাদুড় থেকে এসেছে। যদিও আমেরিকার দাবি এটা চিনের ল্যাবে তৈরি। এই ভাইরাসের উৎস আসলে কোথায় তা জানতে তাই এবার সরেজমিনে খতিয়ে দেখছেন থাইল্যান্ডের বিজ্ঞানীরা। সেই কারণে প্রত্যন্ত জঙ্গলে, পাহাড়ের গুহায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা।

সারা বিশ্বের এখনও পর্যন্ত ২০.৫ মিলিয়ন লোক করোনায় আক্রান্ত, প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৭,৪৮,০০০ মানুষ। চিনের দাবি এই ভাইরাস যে বাদুড় থেকে এসেছে। করোনা ভাইরাসের প্রায় সমকক্ষ ভাইরাস এখনও পর্যন্ত উহান প্রদেশে হর্স শু বাদুড়ের দেহে পাওয়া গিয়েছে।

থাইল্যান্ডে ১৯ রকমের হর্স শু বাদুর পাওয়া যায়। তবে তাদের কোনও প্রজাতিরই এখনও পরীক্ষা করা হয়নি। সম্প্রতি থাইল্যান্ডের বিজ্ঞানীরা কাঞ্চনাবুরি প্রদেশের সাই ইয়োক জাতীয় উদ্যানের একটি পাহাড়ে চড়েছেন সেখানকার একটি গুহায় বাদুড় ধরার জন্য। তিনটি আলাদা আলাদা গুহা ঘুরে মোট ২০০টি বাদুড় ধরেছেন তারা। তারপর সেগুলির মল, রক্ত ও লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে তা পাঠানো হয়েছে ল্যাবে।

এই বিজ্ঞানীদলের নেতৃত্বে আছেন সুপাপর্ন ওয়াচারাপ্লাসাডি। তিনি প্রায় ২০ বছর ধরে বাদুড়ের ওপর কাজ করছেন। চিনের বাইরে থাইল্যান্ডে প্রথম করোনা ভাইরাসের সন্ধান যে চিকিৎসক-বিজ্ঞানীদের দল পেয়েছিল, সেই দলের সদস্য ছিলেন সুপাপর্ন। থাইল্যান্ডের বাদুড়ের দেহেও এই ভাইরাস মিলবে কিনা, তা খুব শীঘ্রই জানা যাবে বলে তার আশা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here