kolkata news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: হায়দরাবাদ গণধর্ষণ ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পর সম্প্রতি একই ঘটনার সাক্ষী থেকেছে উত্তরপ্রদেশের উন্নাও। এখানেও নির্যাতিতাকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যা করেছে ৫ অভিযুক্ত। গোটা ঘটনার জেরে ইতিমধ্যেই ফুঁসে উঠেছে দেশ। ৫ জনের মধ্যেই ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে ৩ জনকে বাকি ২ জন এখনও অধরা। এরইমাঝে নিজেকে বাঁচতে আদালতে মিথ্যা প্রমাণ পেশ করল এই কাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত শুভম ত্রিবেদী। তার দাবি, যেদিন ভয়ঙ্কর ওই ঘটনা ঘটে সেই দিন নাকি হাসপাতালে ভর্তি ছিল শুভম। যদিও মিথ্যা সে দাবি ধোপে টিকল না হাসপাতালের সৌজন্যে।

উন্নাও ধর্ষণ মামলায় এদিন আদালতের কাছে এক ফাইল জমা পড়ে। যে ফাইলে ওই ধর্ষণ কাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত শুভম নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের চেষ্টায় আদালতকে জানায়, ২৩ বছরের ওই মেয়েটিকে গণধর্ষণের সময়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিল না সে। সেই সময় স্থানীয় একটি সরকারী হাসপাতালে ভর্তি ছিল অভিযুক্ত। প্রমাণ স্বরূপ হাসপাতালে ভর্তির নথিও জমা দেয় সে। তবে অভিযুক্তের সে মিথ্যা দাবি খারিজ হতে বেশি সময় লাগেনি।

আদালতে মিথ্যা সেই তথ্য পেশ হওয়ার পরই ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, ওই দিন অভিযুক্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়নি। যদি হত তাহলে হাসপাতালে শুভম ত্রিবেদীর নামে হাসপাতালে রেজিস্ট্রেশন স্লিপ জমা পড়ত। কিন্তু ওই নামে কোনও স্লিপ হাসপাতালের রেজিস্টারে নেই। ওই দিনে ওই নামে কোনও রোগী হাসপাতালে ভর্তি ছিল না। এবং যে নথি জমা দেওয়া হয়েছে সেটা জাল নথি। বলা বাহুল্য হাসপাতালের তরফে এমন বিবৃতিতে বেশ চাপে উন্নাও কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত শুভম ত্রিবেদী।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সকালে ধর্ষণ মামলার শুনানির জন্য আদালতের উদ্দেশে রওনা হয়েছিলেন উন্নাওয়ের নির্যাতিতা তরুণী। রায়বরেলি থেকে ট্রেন ধরে আদালতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু পথে তাঁকে ধাওয়া করে ৫ দুষ্কৃতী। সেই দলে ছিল ধর্ষণে অভিযুক্ত শিবম ত্রিবেদী এবং শুভম ত্রিবেদী। রেলগেটের কাছে এক নির্জন জায়গায় প্রথমে লাঠি দিয়ে নির্যাতিতার পায়ে সজোরে আঘাত করে দুষ্কৃতীরা। এরপর ছুরি চালানো হয় গলায় সবশেষে গায়ে পেট্রোল ঢেলে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় নির্যাতিতাকে। ওই অবস্থাতেই প্রায় ১ কিলোমিটার দৌড়ে এক ব্যক্তির কাছে ফোন চেয়ে পুলিশকে ফোন করে সে। স্থানীয়দের তৎপরতায় তাঁকে ভর্তি করা হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ার এয়ারলিফট করে তাঁকে উড়িয়ে আনা হয় দিল্লিতে। সেখানেই শুক্রবার রাত ১১ টা ১০ মিনিট নাগাদ মৃত্যু হয় ওই নির্যাতিতার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here