kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: এই মুহূর্তে নির্বাচন কমিশনের হাতে আছে চূড়ান্ত ক্ষমতা। কিন্তু সেই ক্ষমতার কোনও ব্যবহার নেই। একটা সার্কুলার দিয়ে জনগণের ওপর ছেড়ে দিচ্ছে কমিশন। সার্কুলার নয়, আমরা কমিশনের কাছে পদক্ষেপ চাইছি। আজ এই ভাবে নির্বাচন কমিশনকে কার্যত তুলোধনা করেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি। কোভিড আবহে যথাযথ প্রোটোকল মেনে নির্বাচনের পাশাপাশি প্রচার-সহ নানাবিধ কাজ চলছে না বলে কমিশনের দিকে অভিযোগের আঙুল উঠেছে। যদিও সব রকম কোভিড সতর্কতা মেনে নির্বাচনের কাজ চালানো হচ্ছে বলে কমিশনের তরফ একাধিকবার দাবি করা হয়েছে। কিন্তু কমিশনের সেই দাবি উড়িয়ে দিয়ে তীব্র ভর্ৎসনা করলেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি।

​হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণ, এই সময় কমিশনের হাতে চূড়ান্ত ক্ষমতা আছে। কিন্তু, তার কোনও ব্যবহার নেই। এখন টিএন শেসনের সময়ের দশভাগের একভাগ করে দেখাক কমিশন। একটা সার্কুলার জারি করে জনগণের ওপর সব ছেড়ে দিচ্ছে। পুলিশ, কুইক রেসপন্স টিম সবাই এখন আপনাদের অধীনে আছে। তাও সে সব কেন ব্যবহার করা হচ্ছে না? করোনার সময় প্রচার বন্ধের যে মামলা করা হয়েছিল হাইকোর্টে, সেই মামলার শুনানিতে আজ এই কথা বলেছে রাজ্যের সর্বোচ্চ আদালত। একইসঙ্গে হাইকোর্ট বলেছে, এই সময় সার্কুলার নয়, আমরা কমিশনের কাছে পদক্ষেপ চাইছি। কোনও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি নেই বলে আমরা অর্ডার দিতে পারছি না। প্রয়োজনে আমরা টিএন শেসনের কাজ করব।

​৮ দফা নির্বাচনের মাঝে করোনা প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় কমিশনের হস্তক্ষেপ দাবি করেছিল রাজ্যের শাসকদল-সহ একাধিক মহল। হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়েছিল এই সময় প্রচার বন্ধ করার দাবিতে। কিন্তু কমিশনের তরফে বলা হয়, উপযুক্ত বাহিনী না থাকার কারণে ভোট নির্ঘণ্ট অনুযায়ী হবে। শেষ দু’দফা বা তিন দফার ভোট একসঙ্গে করা যাবে না। একইসঙ্গে প্রচারে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করে কমিশন। যদিও সেই বিধিনিষেধ অনেক জায়গায় মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠতে থাকে। সব মিলিয়ে কমিশন বেশ চাপে পড়ে। আজ আবার কমিশনের সেই চাপ বাড়িয়ে তাদের তীব্র ভর্ৎসনা করলেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here