ডেস্ক: ‘জিরো’ সাইজে যখন বলিউড কাঁপাচ্ছে হিরোইনরা। তখন মেদ ঝড়িয়ে, শাড়ি পরে আলাদা রূপে নিজেকে মেলে ধরেছিলেন বিদ্যা বালন। বলিউডে হিরোইনদের ফিগার বাতিককে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে, নিজের মতো করে ট্রেন্ড শুরু করেন বিদ্যা। সেটির বড় প্রমাণ মিলিন লুথরিয়ার ‘দ্য ডার্টি পিকচার’। দক্ষিণের বিখ্যাত প্রাপ্তবয়স্ক সিনেমার অভিনেত্রী সিল্ক স্মিথার বায়োপিক ছিল এটি। কার্যত নিজের কেরিয়ারে এই ধরনের অভিনয় প্রথমবারের জন্য করেন বিদ্যা। আর সেই সিনেমায় নিজেকে অন্য মেজাজে মেলে ধরেছিলেন বিদ্যা।

দর্শক থেকে সমালোচকের সবার নজর কেড়েছিলেন বিদ্যা বালন। এই প্রসঙ্গে বিদ্যা জানান, ”ডিসেম্বরের ২ তারিখ, সালটা ২০১১। ঠিক সাত বছর আগে ‘দ্যা ডার্টি পিকচার’ মুক্তি পায়। যেটি আমার জীবন একেবারে পাল্টে দেয়। কিন্তু সবাই আমাকে যখন সবাই আমাকে জিজ্ঞাসা করে কীভাবে এই কাজটি করলাম? আমার কাছে সেই প্রশ্নের কোনও উত্তর থাকে না”। পাশাপাশি বিদ্যা আরও জানান, ”আমার মনে একটাই ইচ্ছা ছিল। কিভাবে এই সিনেমার মাধ্যমে ‘সিল্ক স্মিথা’র ভাবমূর্তি বদলানো যায়”। এই সিনেমার জন্যই সেইবছরে জাতীয় পুরস্কারের সম্মানটি ছিনিয়ে নেন বিদ্যা বালন। কেরিয়ারে একের পর এক ফ্লপের পরে অবশেষে একটি হিট ছবি দেন। যার জন্য পুরো কেরিয়ারটি ঘুরে যায় বিদ্যার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here