kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি : পায়ে পা দিয়ে অশান্তি করতে চাইছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়! অন্তত এমনই অভিযোগ তৃণমূলের। চার বিধায়কের চার্জশিটে সায় দিয়েছেন রাজ্যপাল। সে খবর বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সম্প্রচারিতও হয়েছে। তার পরেও ফের আজ, রবিবার মন্ত্রিসভা গঠনের ঠিক আগের দিন এ নিয়ে টুইট করেছেন রাজ্যপাল। এর জেরেই রাজ্যপালের বিরুদ্ধে পায়ে পা দিয়ে অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টার অভিযোগ।

নারদ মামলায় অভিযোগের আঙুল ওঠা চার বিধায়কের বিরুদ্ধে সিবিআইকে চার্জশিট পেশ করার অনুমতি দিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। এঁরা হলেন ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়। এঁদের মধ্যে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবার নির্বাচন থেকে শতহস্ত দূরে ছিলেন। বাকি তিনজনই বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন। শপথ নিয়েছেন বিধায়ক হিসেবেও। এঁদের মধ্যে আবার মদন বাদে বাকি দুজন আগামীকাল, সোমবার ফের মন্ত্রগুপ্তির শপথ নিতে চলেছেন। তার আগেই টুইটে এঁদের বিরুদ্ধে তিনি যে চার্জশিট পেশে সায় দিয়েছেন, সেকথা ফলাও করে বলছেন রাজ্যপাল।

রাজ্যপালের এহেন আচরণে নির্লজ্জ রাজনীতির গন্ধই দেখছেন তৃণমূলের একাংশ। তাঁদের মতে, রাজ্যপাল যে চার্জশিট পেশে সায় দিয়েছেন, তা তো সংবাদমাধ্যমের দৌলতে জেনে গিয়েছেন সবাই। তার পরেও ফের একই খবর টুইট করে রাজ্যপাল কোন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে চাইছেন?

রাজ্যপালের পদ বিলুপ্তির দাবি দীর্ঘদিন  ধরে জানিয়ে আসছিলেন বামেরা। তাঁদের অভিযোগ, রাজ্যপাল কেন্দ্রীয় সরকারের এজেন্ট হিসেবে কাজ করেন। মনোনীত এই পদটির বিলোপ সাধনের দাবিতে একাধিকবার সোচ্চারও হয়েছেন বামেরা। তার পরেও রাজ্যপালের পদ রয়েছে বহাল তবিয়তে। রাজ্যপালও রয়েছেন দিব্যি। বিপুল জনাদেশ নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসা একটি সরকারকে মাঝে মধ্যেই খোঁচা দিয়ে তিনি কী আসলে তাঁর অস্তিত্বই জানান দিতে চাইছেন? উঠছে প্রশ্ন।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here