Home Featured ‘আমি তোমাকে ভালোবাসি, তুমি ফিরে চল’, দ্বিতীয়পক্ষের শ্বশুরবাড়ির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে ধরনায় প্রথমপক্ষের স্বামী

‘আমি তোমাকে ভালোবাসি, তুমি ফিরে চল’, দ্বিতীয়পক্ষের শ্বশুরবাড়ির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে ধরনায় প্রথমপক্ষের স্বামী

0
‘আমি তোমাকে ভালোবাসি, তুমি ফিরে চল’, দ্বিতীয়পক্ষের শ্বশুরবাড়ির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে ধরনায় প্রথমপক্ষের স্বামী
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি:  স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না। কথায় কথায় ঝগড়া লেগেই থাকত। অশান্তিতে কাক চিল বসার জোগাড় ছিল না। আদালতে মামলাও চলছে। তার মধ্যে স্ত্রী দ্বিতীয় বিয়ে করে নেন। স্ত্রীর দ্বিতীয় শ্বশুরবাড়ির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে ধরনা বসলেন প্রথম পক্ষের স্বামী। ধরনাতে বসেই বুঝতে পারেন, মন গলবে না স্ত্রীর। তারপরেই ধরনা তুলে নেন। বর্ধমানের গুসকরাতে এই ঘটনা ঘটেছে।

জানা গিয়েছে,  মঙ্গলকোটের সারঙ্গপুরের বাসিন্দা অনির্বাণ বিশ্বাস। তাঁর সঙ্গে ভাতারের সঙ্গীতা ঘোষের বিয়ে হয়। দুই বাড়ি থেকে তাঁদের প্রণয়ের সম্পর্ক কোনওদিন মেনে নেয়নি। অনেক অশান্তিও হয়। দুই বছর আগে তারা পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন। কিন্তু ওই বিয়ের তিন মাস পর থেকে ভালোবাসাও পালাতে থাকে। অশান্তি শুরু হয়। এরপরেই সঙ্গীতা বাপের বাড়িতে চলে আসেন। বধূনির্যাতনের মামলাও করেন। সেই মামলা এখনও চলছে। দুই জনের মধ্যে মুখ দেখাদেখি পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যায়।

এরপর গুসকরার শান্তিপুরের বাসিন্দা দীপক মণ্ডলকে সঙ্গীতা বুধবার বিয়ে করেন। দীপক মণ্ডলও আগে থেকে বিবাহিত ছিলেন। মাস চারেক আগে তাঁদের ডিভোর্স হয়ে যায়। বুধবার বিয়ের খবর পাওয়ার পরেই অনির্বাণ বৃহস্পতিবার সঙ্গীতার নতুন শ্বশুরবাড়িতে হাজির হয়। হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে ধরনায় বসে। সেখানে লেখা ছিল, সঙ্গীতা আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি তুমি ফিরে চল। এই দৃশ্য দেখে প্রতিবেশীরাও জমা হতে শুরু করেন। প্রতিবেশীরা অনির্বানকে সেখান থেকে চলে যেতে বলে। নাছোড়বান্দা অনির্বাণ। তিনি বলেন, তিনি কোনওভাবেই যাবেন না। এরপরেই আসরে নামেন নববধূ। তিনি বলেন, তিনি নিজের ইচ্ছাতে বিয়ে করেছে। সে এখানেই থাকবে। অনির্বাণ অন্য কাউকে বিয়ে করে নিতে পারে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে অনির্বাণ সেখান থেকে চলে যায়।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here