Parul

মহানগর ডেস্ক: দেশে করোনা সংক্রমনের বাড়বাড়ন্তের কারণে নাজেহাল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তার মধ্যেই দেশে নতুন করে চোখ রাঙাচ্ছে করোনার নয়া রূপ ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট। ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে পাওয়া গিয়েছে করোনার ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট বাদ গেলোনা তার মধ্যে ত্রিপুরাও। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরায় ৯০ জন করোনার নয়া রূপ ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট দ্বারা সংক্রমিত হয়েছে। উত্তর-পূর্ব ভারতে এটি প্রথম এমন রিপোর্ট যেখানে একসঙ্গে প্রায় ১০০ জন মানুষ ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট দ্বারা সংক্রমিত।

ads

সরকারি রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, ১৫০ টিরও বেশি করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির নমুনা পশ্চিমবঙ্গের একটি সরকারি পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছিল। তার মধ্যে থেকে ৯০ টি ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট পাওয়া গিয়েছে। যা ইতিমধ্যেই ত্রিপুরার কপালে চিন্তার ভাঁজ তৈরি করেছে। এছাড়াও কয়েকটি করোনার রিপোর্টে ডেল্টা এবং আলফা ভেরিয়েন্ট পাওয়া গিয়েছে। বর্তমানে ত্রিপুরার করণা সংক্রমনের পরিস্থিতিতে দেখা গিয়েছে যে, সেই রাজ্যে করোনা দ্বারা সংক্রমিত ৫৬,১৬৯। এখনো পর্যন্ত ওই রাজ্যে মারা গিয়েছে ৫৭৪ জন এবং সক্রিয় করোনা সংক্রমনের সংখ্যা ৫,১৫২।

এই রাজ্যের দৈনিক সংক্রমনের ৫ শতাংশ উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ত্রিপুরার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছে যে, তৃতীয় ঢেউয়ের সময় এই রাজ্যে ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ করোনা ভাইরাসের ডাবল মিউট্যান্ট বা ডেল্টা ভেরিয়েন্ট দ্বারা সংক্রমিত হয়েছে। সর্বভারতীয় একটি সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া বিবৃতিতে, ডক্টর তপন মজুমদার জানিয়েছেন যে, ‘অন্যান্য রাজ্যের মত ত্রিপুরাতেও ডেল্টা ভেরিয়েন্ট এর সংক্রমণ বেশি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এই রাজ্যে সবথেকে বেশি আক্রান্ত হয়েছিল ১৮ ঊর্ধ্ব থেকে শিশুরা’। যদিও ত্রিপুরাতে ভ্যাক্সিনেশন এর কাজ অত্যন্ত ভালো ভাবেই এ চলছে।

ত্রিপুরায় সংক্রমণের হার কম করার জন্য ইতিমধ্যেই সপ্তাহান্তে কারফিউ জারি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ শনিবার রাত ১২ টা থেকে সোমবার সকাল ৬ টা পর্যন্ত ত্রিপুরায় জারি থাকবে কারফিউ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here