kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : মহেশতলার রাসায়নিক কারখানার আগুন নেভাতে নামানো হল রোবট। আগুন লাগার ঘণ্টা আটেক পরেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। দমকলের ইঞ্জিনের পাশাপাশি কাজ করছে যন্ত্রমানবও। ঘটনাস্থলে চলে এসেছেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসুও।

ads

কলকাতা লাগোয়া মহেশতলায় বেশ কিছু রাসায়নিক কারখানা ও গুদাম রয়েছে। এদিন সকাল এগারোটা নাগাদ এখানকারই একটি রাসায়নিক কারখানা থেকে জোরালো বিস্ফোরণ হতে থাকে। কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চতুর্দিক। খবর দেওয়া হয় দমকলে। দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে আসে দমকলের ইঞ্জিন। তবে ততক্ষণে ভয়াল আকার নিয়েছে আগুন। দাউ দাউ করে জ্বলছে গোটা কারখানা। আগুন যাতে লাগোয়া গোডাউন কিংবা কারখানায় ছড়িয়ে না পড়ে তার চেষ্টা করেন দমকলের আধিকারিকরা। কৌশলে বের করে আনা হয় ওই কারখানার শ্রমিকদের। প্রথমে ঘটনাস্থলে এসেছিল দমকলের দুটি ইঞ্জিন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে ইঞ্জিনের সংখ্যা। শেষমেশ ১২টি ইঞ্জিন এসে লাগে আগুন নেভানোর কাজে। তার পরেও আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসায় নামানো হয় রোবট। শেষতক পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, রাসায়নিক কারখানার আগুন ছড়িয়ে পড়েছে পাশের নারকেল তেলের কারখানায়। ওই রাসায়নিক কারখানাটির আশপাশে রয়েছে ২৫০টির মতো গুদাম। সেগুলির কোনও একটিতে আগুন লাগলে বিপদ আরও বাড়বে। সেই জন্যই আগুন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে, সেই চেষ্টাই করছেন দমকলের আধিকারিকরা।

আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে আসেন মন্ত্রী সুজিত বসু। কথা বলেন দমকলের আধিকারিকদের সঙ্গে। তিনি বলেন, আধিকারিকরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন। রোবটও কাজে লাগানো হয়েছে। আগুনে সামান্য জখম হয়েছেন একজন।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here