news bengali kolkata

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা পুরসভার সেন্ট্রাল স্টোর থেকে চুরি গেল ১৫ লক্ষ টাকার জিনিস। বুধবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করে কলকাতা মিউনিসিপাল কর্পোরেশন অ্যান্ড অ্যালায়েড অ্যাসোসিয়েশন সংগঠন। এই ঘটনার জন্য এদিন পুর কর্তৃপক্ষের গাফিলতির দিকেও আঙ্গুল তোলেন তারা। এদিকে, চুরির ঘটনার কথা স্বীকার করে নেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর অন্যতম সদস্য তথা সেন্ট্রাল স্টোরের ভারপ্রাপ্ত বিদায়ী মেয়র পারিষদ তারক সিং। যদিও সমগ্র ঘটনার নেপথ্যে পুরসভার গাফিলতি মানতে নারাজ পুরকর্তৃপক্ষ।

এদিন কলকাতা মিউনিসিপাল কর্পোরেশন অ্যান্ড অ্যালায়েড অ্যাসোসিয়েশন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মানস সিনহা জানান, ‘ঘটনাটি ঘটে ৩ আগস্ট। ওইদিন মৌলালি সেন্ট্রাল স্টোর থেকে ১৯ টন মূল্যবান জিনিসপত্র গায়েব হয়েছে। বর্তমান বাজারে যার মূল্য প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা। যে জিনিসপত্রগুলি গায়েব হয়েছে সেগুলি অত্যন্ত ভারী। কোনওরকম যানবাহন ছাড়া সেগুলি বয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। এদিকে ওই স্টোরে নিরাপত্তাকর্মীরা সবসময় থাকেন। সেক্ষেত্রে শহরের একটি জনবহুল এলাকা মৌলালী থেকে সমস্ত সিকিউরিটির নজর এড়িয়ে কীভাবে চুরি সম্ভব?’

এই গোটা ঘটনার বিষয়ে এদিন পুরসভার গাফিলতির দিকেই আঙুল তোলেন তিনি। পাশাপাশি ওই দিন যে সমস্ত নিরাপত্তাকর্মীরা সেন্ট্রাল স্টোরের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন তাদের অবিলম্বে সাসপেন্ড করার দাবি জানানো হয় সংশ্লিষ্ট সংগঠনের পক্ষ থেকে। এমনকি যে নিরাপত্তারক্ষী সংস্থা নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে তাদেরকেও অবিলম্বে কালো তালিকাভুক্ত করার দাবি জানানো হয়েছে।

যদিও পুরসভার বিরুদ্ধে সংগঠনের যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর অন্যতম সদস্য তথা সেন্ট্রাল স্টোরের ভারপ্রাপ্ত বিদায়ী মেয়র পারিষদ তারক সিং। তিনি বলেন, ‘আমফানের সময় সেন্ট্রাল স্টোর থেকে কিছু জিনিসপত্র চুরি হয়েছে। তবে দামি কিছু খোয়া যায় নি। যেগুলি চুরি গিয়েছে তাদের বাজারমূল্য একদমই ন্যূনতম।’ তবে এই চুরির বিষয়ে ইতিমধ্যেই থানায় রিপোর্ট করা হয়েছে বলে জানান তিনি। যদিও সমগ্র বিষয়টি সামনে আনার পরিবর্তে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে বলেই এদিন পুরকর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে নির্দিষ্ট সংগঠন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here