Home Featured একই শহরে পর্যটকদের জন্য দুধরনের নীতি, বিপাকে হোটেল মালিক থেকে পর্যটকরা

একই শহরে পর্যটকদের জন্য দুধরনের নীতি, বিপাকে হোটেল মালিক থেকে পর্যটকরা

0
একই শহরে পর্যটকদের জন্য দুধরনের নীতি, বিপাকে হোটেল মালিক থেকে পর্যটকরা
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি:  পর্যটকদের জন্য একাধিক এলাকাতে করোনা সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে পর্যটকদের জন্য নয়া বিধি স্থানীয় প্রশাসন নিয়ে আসছে। সেই বিধি অনুযায়ী আগাম সতর্ক হয়েই পর্যটকরা নিজেদের পছন্দের জায়গায় যাবেন। কিন্তু একই পর্যটন শহরের যদি দুটো নিয়ম হয়, সেক্ষেত্রে কী করবেন পর্যটকরা। শিলিগুড়িতে কোনও কোনও হোটেলে করোনা ভ্যাকসিনের ডবল ডোজের সার্টিফিকেট লাগছে তো কোনও হোটেলে কিছুই লাগছে না। এছাড়াও একাধিক বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে।

দার্জিলিং জেলায় পর্যটকদের জন্য যে নিয়ম করা হয়েছে, তা শুধু পাহাড়ের জন্য। কোনও পর্যটক শিলিগুড়িতে এলে কোনও নিয়মের প্রয়োজন নেই। অন্য দিকে আবার, জলপাইগুড়ির সমগ্র জেলাতেই পর্যটকদের জন্য এই নিয়ম থাকবে। অন্যদিকে পাহাড়ি এলাকা মূলত দার্জিলিংয়ে। ডুয়ার্স মূলত জলপাইগুড়ি জেলাতে।  আবার শিলিগুড়ির কিছুটা অংশ দার্জিলিং জেলার অংশ আর কিছুটা অংশ জলপাইগুড়ি জেলার অংশ। তাই জলপাইগুড়ি জেলার অধীনে যে সব হোটেল রয়েছে, সেখানে করোনার ভ্যাকসিনের ডবল ডোজ লাগবে পর্যটকদের না হলে ৪৮ ঘণ্টা আগের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট লাগবে।

এই সমস্যার থেকে বড় সমস্যা দেখে দিয়েছে, ডুয়ার্স আর পাহাড়ের সমন্বয়ের অভাবে। ডুয়ার্সে ঢুকতে গেলে ৪৮ ঘণ্টা আগের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট লাগবে। আবার পাহাড়ে ঢুকতে গেলে ৭২ ঘণ্টা আগের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট লাগবে। এবার ধরা যাক কোনও পর্যটক পাহাড় থেকে ডুয়ার্সে ঢুকছেন, বা ডুয়ার্স থেকে পাহাড়ে আসছেন, সেক্ষেত্রে তাঁরা কী করবেন।

এই উত্তর না আছে ট্রাভেল এজেন্সিদের কাছে, না আছে হোটেল মালিকদের কাছে। হোটেল মালিকরা বলছেন, তাঁদের কাছে পর্যটক আসার জন্য ফোন করছেন। কিন্তু তারা কথা বলতে পারছেন না। দুই জেলা প্রশাসনের মধ্যএ সমন্বয়ের অভাবেই এই ঘটনা ঘটছে বলেও তাঁরা মনে করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here