kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: নববর্ষে ভক্তশূন্য তারাপীঠ। বিষাদের সুর মন্দিরে। প্রতিবছর নববর্ষে হাজারও ভক্তনার্থীর ভিড়ে ঠাসা থাকে তারাপীঠ মন্দির। কিন্তু, দ্বিতীয় পর্যায়ে যে ভাবে করোনার বাড়বাড়ন্ত শুরু হয়েছে, তাতে সকল ট্রেন পরিষেবা স্বাভাবিক না হওয়ায় বহিরাগত ভক্তশূন্য তারাপীঠ। মন্দির কমিটির সেবাইত তারাময় মুখোপাধ্যায় জানান, শুধুমাত্র স্থানীয় মানুষজন ও ব্যবসায়ীরা তাদের হালখাতার পুজো করতে তারাপীঠে এসেছেন। বহু হোটেল খালি। অনেক হোটেলের বুকিংও বাতিল হয়েছে। তার মাঝে করোনাবিধি মেনে চলছে মা তারার পুজার্চনা। সকালে মঙ্গলারতির মাধ্যমে শুরু হয়েছে পুজো। আগের বছরের মতো এবছরও চেনা ছবি দেখা গেল না তারাপীঠে।

এদিকে, করোনার বাড়বাড়ন্তের মাঝে তারাপীঠে এমন ছবি দেখা গেলেও তার উল্টো ছবি দেখা গেল দক্ষিণেশ্বরে। প্রতিবছরের মতো এবছর দক্ষিণেশ্বরে তেমন ভিড় না হলেও নববর্ষ উপলক্ষে বেশ কিছু মানুষ ভিড় করেছিলেন মন্দির চত্বরে। তবে তাদের অনেকের মুখে মাক্স দেখতে পাওয়া যায়নি। যদিও মন্দির চত্বরে সমস্ত জায়গায় সতর্কতামূলক বাণী হিসেবে লেখা আছে, ‘মাস্ক ছাড়া মন্দির চত্বরে প্রবেশ নিষেধ’। তারপরও অনেককে দেখা গেল মাস্ক পড়ে মন্দির চত্বরে ঢুকলেও সেই মাস্ক খুলে তারা পকেটে রেখে দিয়েছেন।

​করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যে ভাবে আঘাত হেনেছে, তাতে ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত সব মহল। এমন অবস্থায় রাজনৈতিক মিটিং-মিছিলের পাশাপাশি চৈত্র সেল ও নববর্ষ উপলক্ষে প্রচুর মানুষের জমায়েত হচ্ছে। আর এই জমায়েত থেকে করোনা ছড়ানোর সবথেকে বড় আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাই ‘মহানগর’ সাধারণ মানুষের কাছে অনুরোধ করছে করোনাকে প্রতিহত করতে সবাই মাস্ক পরুন। শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখুন। বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিন থেকে সেই শপথ নিন সকলেই। এই প্রত্যাশা মহানগরের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here